ব্লগ লেখার নিয়ম এবং কৌশল

ব্লগ লেখার নিয়ম বা কৌশল

ব্লগ লেখার নিয়ম বলতে কিছু কৌশল মাত্র। যা আপনি আমি সবাই জানি শুধু সঠিক ভাবে প্রয়োগ করতে হবে।

হাই, আমি ব্লগার সজীব রায়। সবাইকে ব্লগ লেখার নিয়ম বা কৌশল আলোচনায় স্বাগতম। আপনি যখন এই লেখাটি পড়ছেন তখন আপনি দুই ধরনের ব্যাক্তি হতে পারেন। এক আপনি একজন ব্লগার অথবা আপনি নতুন ব্লগ শুরু করতে চাচ্ছেন।

তাহলে চলুন শুরু করা যাক আজকের আসল পর্ব ।

আমরা আজকের আলোচনাকে কয়েকটি বিয়ষ ভাগে করেছি। যে বিষয় গুলো মনের মধ্যে রেখে ব্লগ লেখা শুরু করবেন।

ব্লগিং ইতিহাস

ব্লগের বিষয় নির্বাচন

আপনি এখন যে ব্লগটি পড়ছেন তা লেখা শুরু করার আগে আমাকে প্রয়োজনী চিন্তা ভাবনা একটা নোট করতে হয়েছে। আমার নোট করা বিষয় গুলো নিয়ে এখন একটার পর একটা আলোচনা হচ্ছে।

ব্লগের বিষয় নির্বাচন

আপনার ব্লগটি একটি বিষয় হলে ক্যাটাগরি ব্লগের অধ্যায় এবং প্রতিটি লেখা এক একটি পাট মাত্র।

সুতরাং যখন কোন ব্লগ লিখবেন তখন তার পাট নির্বাচন করতে হবে আপনাকে। সঠিক পাট নির্বাচন করা নির্ভর করবে আপনার উপর।

ব্লগ সাইট কিভাবে বানাবেন

বিষয় ভিত্তিক ব্লগ আয়

ব্লগিং শুরু করার আগে আপনাকে জানতে হবে কোন ধরনের বিষয় বেশি আয় করা যায়। কারন ব্লগের বিষয় অনুযায়ি ব্লগ সাইটের আয় হয়। এবং ব্লগ বিষয় বিস্তারিত জানা থাকলে বিষয় নির্বাচন করা সহজ হয়।

শুধু যে বিষয় কেন্দ্রিক ব্লগ থেকে আয় করা যায় তা কিন্তু নয়, কারন গুগল অ্যাডসন্স ব্যতিত ব্লগ থেকে আয় করার বিভিন্ন উপায় আছে।

ধরুন আপনার বিষয় “হোম এবং গার্ডন” অন্য জনের লেখার বিষয় “স্বাস্থ্য” তাহলে দুইজনের ব্লগ আয়ের পার্থক্য হবে।

সুতরাং ব্লগ শুরু আগে আপনাকে চিন্তা করতে হবে কোন বিষয় নিয়ে আপনি ব্লগ সাইট তৈরি করবেন।

বিষয় ভিত্তিক Google Revenue Donut Chart টি নিচে তুলে ধরা হল। এখান ১০০ ডলারের মধ্যে গুগল কোন ধরনের ওয়েবসাইটকে কত পারসেন্ট দেয় তা তুলে ধরা হয়েছে।

Subject Based Google Revenue

একটা উদাহরন দেওয়া যাকঃ

আপনি একজন গনিত শিক্ষক, যষ্ট শ্রেনীর গনিত বইয়ের বীজগনিত অধ্যায় নির্বাচন করলেন আজকের আলোচনার জন্য। এবার সেই অধ্যায়ের প্রথম পাটের সূচক, পাওয়ার, ধ্রবক, বীজ, ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা শুরু করলেন।

ঠিক একই ভাবে ব্লগ লেখার সময় আপনাকে বাছাই করতে হবে কোন পাট নিয়ে লেখা শুরু করবেন। এবং পাটের আলোচনার বিষয় কি কি হবে?

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন। চলুন এবার দ্বিতীয় ধাপ শুরু করা যাক।

ব্লগ কন্টেন্ট লেখার উপায়

ব্লগে ভিজিটর ধরে রাখার কৌশল

ব্লগ সাইট গুলো বড় সমস্যা হল ভিজিটর Bounce Rate। একজন ভিজিটর ব্লগে প্রবেশ করে কোন কিছু না পড়ে চলে গেলে বাউন্স রেট বৃদ্ধি পায়। মানে আমি বোঝাতে চাচ্ছি ভিজিটর যত বেশি ব্লগে থাকবে তত বেশি বাইন্স রেট কম হবে।

এখন প্রশ্ন হল, ব্লগে ভিজিটর প্রবেশ করে কেন চলে যায়? অনেক ধরনের কারন হতে পারে। তার মধ্যে আমার কাছে যে সমস্যাটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় সেটি হল ব্লগের উপস্থাপন।

আপনার ব্লগের উপস্থাপন ভালো না হলে ভিজিটর পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। সুতরাং কোন ব্লগ লেখার আগে এটা চিন্তা করাটা জরুরি তার উপস্থাপন কেমন হবে।

ব্লগে ছবি যুক্ত করাটা জরুরি। ব্লগ লেখার মধ্যে ছবি যুক্ত করলে ভিজিটর পড়ার আগ্রহ প্রকাশ করে।

টিউটোরিয়াল রিলেটেড ব্লগ পোষ্টের বাইন্স রেট খুবেই কম। আপনি আপনার ব্লগ সাইটের বাইন্স রেট কমানোর জন্য টিউটোরিয়াল রিলেটেড ব্লগ পোষ্ট করতে পারেন।

ফ্রি ব্লগিং এবং পেইড ব্লগিং করার মধ্যে পার্থক্য

ব্লগ লেখার নিয়ম – ব্লগের Category

ব্লগের ক্যাটাগরি খুবেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ব্লগারের জন্য। অবশ্য অনেক ব্লগার ক্যাটাগরি উল্লেখ করে না, এটা তাদের ব্যাপার। আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি ব্লগে ক্যাটাগরি উল্লেখ করা উচিত।

Blog category

কি ভাবে ক্যাটাগরি নির্বাচন করবেন?

আপনি যে বিষয়টা নিয়ে লিখছেন তার বিষয় চিন্তা করুন। যদিও একটি বিষয় অনেক ক্যাটাগরির মধ্যে রাখা যায়।

চিন্তা করার সময় দেখবেন মাথার মধ্যে অনেক গুলো ক্যাটাগরি ঘোরাঘুরি করছে। যেমন টিউটোরিয়া, শিক্ষা, গল্প, গবেষণা, ইত্যাদি। এবার সব গুলো থেকে একটি নির্বাচন করুন, যা আপনার কাছে সঠিক মনে হবে।

ধরুন, এই লেখাটি দুইটি ক্যাটাগরির মধ্যে ফেলানো যায় এক শিক্ষা, দুই ব্লগিং। কিন্তু এই লেখার URL দেখুন, আমি এই লেখাকে ব্লগের মধ্যে নিয়েছি। এটাই আসলে মূল বিষয়, আপনার কাছে যা পছন্দের মনে হবে।

ব্লগ পোষ্ট করার নিয়ম

ব্লগ পোষ্ট করার জন্য বেসিক কিছু বিষয় আপনাকে লক্ষ রাখতে হবে। ব্লগে পোষ্টের টাইটেল ঠিক আছে কি না দেখে নিন। যেমন এই পোষ্টের টাইটেল হল ব্লগ লেখার নিয়ম এবং কৌশন যা খুবেই সাধারন এবং সিমপল। আপনি ব্লগ পোষ্ট করার সময় টাইটেলটি সাধারন রাখবেন।

পোষ্ট করার আগে পোষ্ট পারমালিংক চেক করে নিন। পোষ্ট পারমালিংক যেন ক্লিয়ার বোঝা যায়। নিচের পারমালিংক টি লক্ষ করুন।

blog post permalink
Blog Post Permalink

যেমন আমার এই পোষ্টের পারমালিংক হল ব্লগ লেখার নিয়ম। আপনি ক্যাটাগরি পেজ ক্রিয়েট করে থাকলে তা নির্বাচন করুন। নিচের ছবিটি দেখুন।

ব্লগ পোষ্ট
ব্লগ পোষ্ট

এবার ফিচার ইমেজ ‍যুক্ত করে পাবলিশ বাটনে ক্লিক করুন। আপনি চাইলে ট্যাগ যুক্ত করতে পারেন। বিস্তারিত জানার জন্য নিচের ফ্রি ব্লগিং প্রফেশনাল ভিডিও গুলো দেখতে পারেন। নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন।

ফ্রি প্রফেশনাল ব্লগিং কোর্স

প্রয়োজনীয় লিংক এবং ছবি

যারা নতুন তাদের উদ্দেশ্যে বলছি। আপনি ব্লগ লেখা শুরু করলে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের লিংক আপনাকে রেফার করতে হবে। যে সকল লিংক আপনি লেখার মধ্যে রেফার করতে চান তার একটি লিস্ট করে রাখুন।

আপনি যদি লিখতে লিখতে লিংক বের করতে পারেন সেই ক্ষেত্রে লিংক লিস্ট করা দরকার নেই।

ব্লগ লেখার সময় ছবি অবশ্যই লাগবে। সেই ক্ষেত্রে অনেক ওয়েবসাইট আছে যারা কপিরাইট ফ্রি ছবি দিয়ে থাকে সেখান থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারেন। অথবা ছবি ক্রয় করে লেখার মধ্যে দিতে পারেন।

ব্লগ থেকে আয় করার সেরা উপায় গুলো

ফ্রি ছবি ডাউনলোড করার ওয়েবসাইটঃ

Unsplash

Pixabay

Pexels

Freeimages

Freepik

পেইড ইমেজ ক্রয় করার ওয়েবসাইটঃ

Shutterstock

Istockphoto

Gettyimages

ব্লগ উপস্থাপন

ব্লগ লেখার নিয়ম গুলোর মধ্যে ব্লগ উপস্থাপনা আমার কাছে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়। আপনি সঠিক ভাবে ব্লগের লেখা উপস্থাপন করতে না পারলে সেই লেখার কোন গুরত্ব থাকবে না।

আপনি একটি লেখার পাট নির্বাচন করার পর চিন্তা করতে হবে কি ভাবে লেখাটা লিখলে মানুষের ভালো লাগবে। অথবা লেখাটি পড়ার জন্য মানুষ উৎসাহ বোধ করবে।

Blog Presentation

আপনি সারা দিন রাত পরিশ্রম করে একটি লেখা লিখলেন কিন্তু মানুষ সেটা পড়ে না। এর কারন একটাই আর সেটা হল লেখা উপস্থাপনের ভঙ্গিমা।

একটি খারাপ কবিতা খুব সুন্দর লাগে যদি উপস্থাপন ভালো হয়। সুতরাং একটি খারাপ মানের লেখা ভালো লাগবে যদি তার উপস্থাপন ভালো হয়।

ব্লগ লেখার নিয়ম গুলোর মধ্যে ব্লগের লেখা উপস্থাপন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যত ভালো করে সাজিয়ে লেখা লিখতে পারবেন তত বেশি জনপ্রিয়তা পাবেন।

আটিকেল লিখে ক্যারিয়ার তৈরি করতে চাইলে কোন ধরনের আটিকেল লিখে বেশি আয় করা যায় Read the article.

ব্লগিং বিষয় বিস্তারিত আলোচনা

ব্লগের শেষ কথা

প্রতিটি লেখার শেষ গল্পটা সুন্দর হওয়া উচিত। আপনার শেষ কথা গুলোর উপর নির্ভর করবে রিডার কি করবে। মানে আমি বোঝাতে চাচ্ছি রিডার পরর্বতীতে আপনার ব্লগে আসবে কী না। এবং রিডার এক লেখা থেকে অন্য লেখা পড়বে কি না।

সম্পূর্ণ লেখার উপর নির্ভর করবে ব্লগের শেষটা কেমন হবে। আসলে এটা শেখানোর বিষয় নয়, নির্ভর করবে আপনার উপর।

কিছু বিষয় খেয়াল রাখাটা জরুরি যেমন লিংক যোগ করা, প্রেরণা দেওয়া, সহযোগিতা করা, ইত্যাদি।

মনে রাখবেন একটি ব্লগ লেখা মানে অন্যকে গাইডলাইন করা। আর গাইডলাইন কেমন হওয়া উচিত এটা অবশ্যই আপনি জানেন।

আপনাকে ধন্যবাদ লেখাটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য। সম্ভব হলে লেখাটি সবার সাথে শেয়ার করবেন।

WordPress Woocommerce Customization

বাংলা ব্লগ লেখার নিয়ম বা কৌশল বিষয়ে বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিও টি দেওয়া হল।

বিস্তারিত আরও পড়ুর