ফ্রিল্যান্সার VS কন্টেন্ট ক্রিয়েটর

Freelancer jobs

ফ্রিল্যান্সার হল যারা মুক্ত পেশায় কাজ করে। আর যে কাজ গুলো করা হয় তাকে ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়। আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং করে থাকেন তাহলে আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার।

একজন ফ্রিল্যান্সার প্রতিমাসে কত টাকা ইনকাম করবে তার কোন ঠিক নাই। এমন হতে পারে যে একজন ফ্রিল্যান্সার এক মাসে ৫ লক্ষ টাকা আয় করতে পারে আবার পরের মাসে এক টাকা ইনকাম না হতে পারে।

একটা উদাহরন দিয়ে সম্পূর্ণ বিষয়টি বুঝিয়ে দেওয়া যাক।
ধরুন, প্রলব একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার সে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং প্লাটফর্মে কাজ করে অর্থ আয় করে থাকে। আমি একজন বায়ার আমি প্রলবকে একটি কাজ দিলাম ৩০ ডলারের বিনিময়ে।

প্রলব আমাকে কাজটি করে দিল এবং আমি তাকে ৩০ ডলার পেমেন্ট করলাম। এখন প্রশ্ন হল আমি কি প্রলবকে প্রতি মাসে কাজ দিব। না, এর কোন নিশ্চয়তা নেই। আমার কাজ থাকলে আমি প্রলবকে কাজ দিব, না থাকলে দিব না। এটা সম্পূর্ণ ভাবে আমার উপর নির্ভর করবে।

এবং এমনটা হতে পারে যে, আমার কাছে কাজ আছে কিন্তু প্রলবকে দিয়ে কাজটি করিয়ে নিলাম না। আমি অন্য কোন ফ্রিল্যান্সার দিয়ে কাজটি করে নিলাম।

সুতরাং আমরা বলতে পারি ফ্রিল্যান্সিং পেশাটা এমন একটি কাজ যেখান কাজ করলে অর্থ পাওয়া যায়। আমি আজকে ফ্রিল্যান্সিং পেশা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলে কালকে থেকে আপনার ইনকাম শূণ্য।

তারপরেও কোন মানুষ ফ্রিল্যান্সিং শিখছে বা কাজ করছে।

এর দুইটি যৌক্তিক কারন দেওয়া যেতে পারে। একজন পরিপূর্ণ ফ্রিল্যান্সার হতে অনেক সময় এবং পরিশ্রম লাগে। আপনি সফল ভাবে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের প্রথম ধাপের কাজ গুলো করতে পারলে পরর্বতীতে মার্কেট প্লেস থেকে কাজ পেতে সুবিধা হয়।

বিষয় টি এমন হয়ে দাঁড়ায় যে বায়ারের কাজ করার জন্য আপনাকে অন্য কোন ফ্রিল্যান্সারকে হায়ার করতে হবে। তার মানে আপনি বলতে পারেন ক্যারিয়ার অনেকটাই সিকিওয়ার।

freelancing course

Udemy

দ্বিতীয় কারনটা হল অর্থঃ তুলনা মূলক আয়ের থেকে ফ্রিল্যান্সারদের ইনকাম বেশি। একজন চাকরিজীবি যদি প্রতি মাসে ৩০,০০০ থেকে ৪০,০০০ হাজার টাকা ইনকাম করে ৮ ঘন্ট সময় দিয়ে সেই একই সময় দিয়ে একজন ফ্রিল্যান্সার প্রতি মাসে ১ থেকৈ ২ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারে।

ফ্রিল্যান্সার VS কন্টেন্ট ক্রিয়েটর

এই দুইটি প্রশ্নের উত্তর প্রায় একই ধরনের। আপনি ফ্রিল্যান্সার হয়ে যেমন লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন তেমনি একজন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন।

তবে ফ্রিল্যান্সারদের সাথে কন্টেন্ট ক্রিয়েটরের এক ধরনের পার্থক্য আছে।

সহজ ফ্রিল্যান্সিং কাজ সমূহ

কিছুক্ষন আগেই বলেছি যে আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হলে তত ক্ষন পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন যত ক্ষন পর্যন্ত আপনার কাছে কাজ থাকবে। কাজ না থাকলে আপনি ইনকাম করতে পারবেন না।

অন্যদিয়ে একজন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর তার তৈরি করা কন্টেন্ট থেকে দীর্ঘ সময় আয় করতে পারে। আমি বিষয়টি ক্লিয়ারকরছি, ধরুন আমি ইউটুবের জন্য একটি ভিডিও তৈরি করলাম এবং লক্ষ লক্ষ সেই ভিডিওটি মানুষ দেখছে। মানুষ আমার ভিডিওটি দেখার ফলে এড রেভিনিউ থেকে আমি প্রতি মাসে অর্থ আয় করতেছি।

আমি রাতে শুয়ে আছি বা ঘুমিয়ে গেছি সে টা কোন বিষয় না। আমার ভিডিও মানুষ দেখলে আমার ইনকাম হবে। যেমন এই লেখাটির কথায় চিন্তা করুন যেটা আপনি বর্তমানে পড়ছেন।

ইউটিউব থেকে কত টাকা আয় করা য়ায়?

আপনি এই লেখাটি পড়তে পড়তে যদি কোন গুগল বিজ্ঞাপনে ক্লিক করেন তাহলে আমার ইনকাম হবে। সুতরাং পরিপূর্ণ বিষয়টিকে সারমর্ম করলে দাঁড়ায় যে আপনি একজন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর তার কন্টেন্ট থেকে আজীবন ইনকাম করতে পারে। অন্য দিকে একজন ফ্রিল্যান্সার কাজ পেলে ইনকাম করতে পারে, কাজ না পেলে ইনকাম করতে পারে না।

আমি কি ফ্রিল্যান্সার হব?

দেখুন একটা সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করবে আপনার উপর। আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হতে চাইলে কোন সমস্যা নেই। আবার আপনি একজন কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হতে চাইলেও কোন সমস্যা নেই।

আমি খুব ভালো ভিডিও তৈরি করতে পারি। তাহলে আমার ভিডিও তৈরির কাজ করা উচিত। আমি খুব ভালো ডিজাইন করতে পারি তাহলে আপনি ইউটুবে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখাতে পারেন অথবা ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে পারেন। দেখুন আপনি যাই করেন না কোন আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে এটাই সব থেকে বড় বিষয়।

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার হিসাবে কত টা নিশ্চয়তা প্রদান করে?

আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করলে আজীবন ফ্রিল্যান্সিং করবেন বিষয়টা কিন্তু এমন নয়। একজন ফ্রিল্যান্সার একটা পর্যায় যাবার পরে একজন উদ্দ্যোক্ত হয়ে অন্তপ্রকাশ করে।

সর্ব প্রথম যে বিষয়টি গুরুত্ব প্রদান করা দরকার সেটা হল আপনি কত ভালো একজন ফ্রিল্যান্সার হতে পারেন। আপনি যত অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন তত বেশি আপনার গ্রহনযোগ্যতা বাড়বে।

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার হিসাবে অনেক ভালো একটি বিষয় কিন্তু আপনি কত ভালো ফ্রিল্যান্সার হবেন তার উপর নির্ভর করবে আপনার ক্যারিয়ার।

ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের ক্ষেত্রে আরও একটি বিষয় জানাটা জরুরি সেটা হল আপনি কোন বিষয় নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে চাচ্ছেন বা শুরু করবেন। কারন কিছু কিছু ক্ষেত্রে আছে যার মার্কেটপ্লেসে অনেক চাহিদা আছে কিন্তু ফ্রিল্যান্সার অনেক কম সংখ্যাক আছে। আবার আরও কিছু ক্ষেত্র আছে যেখানে ফ্রিল্যান্সার অনেক কিন্তু মার্কেটপ্লেস বেশি নয় বা প্রতিযোগিতা বেশি।

আপনাকে এমন একটি বিষয় নিয়ে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে হবে যেখানে প্রতিযোগিতা কত কিন্তু চাহিদা বেশি। বর্তমানে ডাটা সাইন্স একটি ভালো বিষয় যার মার্কেট প্লেসে চাহিদা অনেক বেশি।

আশা করছি উপরের আলোচনা থেকে বুঝতে পারছেন ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার কি কি বিষয়ের উপর নির্ভর করে।

Freelancing VS Jobs

বিস্তারিত আরও পড়ুর