অনলাইন ব্যবসায়িক আইডিয়া

অনলাইন রিসার্স ফোরাম গুলো তথ্য অনুসারে ২০২৫ হতে ২০৩০ সালের মধ্যে ৮৫% ব্যবসা অনলাইনে চলে আসবে। আজকের একটি ভালো ব্যবসায়িক উদ্যোগ আগামী দিনের স্বার্নালী ভবিষ্যৎ। আমি এই লেখার মধ্য দিয়ে চেষ্টা করব কিছুন অনলাইন ব্যবসায়িক আইডিয়া দেওয়ার জন্য।

যদিও অনলাইন থেকে আয়ের বিভিন্ন উপায় আছে তার পরেও ব্যবসার মত, কোন কিছুই হতে পারে না। একটি ভালো ব্যবসায়িক আইডিয়া আপনার ক্যারিয়ার দাঁড় করিয়ে দিতে পারে।

এই লেখার মাধ্যমে কিছু ওয়েবসাইট ভিত্তিক ব্যবসায়িক আইডিয়া প্রদান করার চেষ্ট করব।

ই-কমার্স ওয়েবসাইট

ই-কমার্স ব্যবসা

যদি বাজেটের উপর ই-কমার্স ব্যবসা নির্ভর করে তবুও কিছু কিছু ব্যবসায়িক আইডিয়া আছে যা অল্প অর্থ বিনিয়োগ করে করা সম্ভব। তেমনি একটি ব্যবসায়িক আইডিয়া হচ্ছে ইউনিক প্রডাক্ট রিলেটেড ই-কমার্স ব্যবসা।

দেখুন কমন প্রডাক্টের উপর ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করলে খুব বেশি সফলতা পাওয়া সম্ভব নয়। আবার একবারে যে সফলতা পাওয়া সম্ভব নয় তা কিন্তু নয়। এর জন্য অবশ্য অনেক বেশি ইনভেস্ট প্রয়োজন।

আপনার ইনভেস্ট কম হলে ইউনিক প্রডাক্ট নিয়ে অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারেন। একটি উদাহরন দেওয়া যাক, আপনি ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করলেন যার মাধ্যমে আপনি শুধু হারবাল বিউটি প্রডাক্ট বিক্রয় করবেন। ইউনিক এবং একক প্রডাক্ট নিয়ে অনলাইন ব্যবসা শুরু করলে কাস্টমার শুধু সেই একক প্রডাক্টের জন্য আপনার ওয়েবসাইটে আসবে।

অনলাইনে ই-কমার্স ব্যবসা শুরু গাইডলাইন

ডেটিং ওয়েবসাইট অথবা অ্যাপ

বিজনেজ অ্যাপ

আজ কাল মোবাইল অ্যাপের ব্যবহার এতো বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে যে কেউ ইউনিক আইডিয়া নিয়ে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইন আয় শুরু করতে পারবেন। একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে সমস্ত বিশ্বের ডেটিং ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ গুলো ভিজিটর সংখ্যা সব থেকে বেশি।

কিছু অর্থ বিনিয়োগ করে একটি ডেটিং ওয়েবসাইট ওপেন করতে পারলে ভালো আয় করা সম্ভব। এখন হয়তো ভাবছেন যে ডেটিং ওয়েবসাইট থেকে কি ভাবে আয় করবেন। আপনি হয়তো জানেন একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে হাজার ভাবে আয় করা সম্ভব।

একটি ব্যবসায়িক ডেটিং ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য ৭০কে থেকে ৯০কে পর্যন্ত খরচ হতে পারে। মোবাইল অ্যাপ তৈরে করতে খরচ হতে পারে ১ লক্ষ টাকা থেকে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত।

অনলাইন স্কুল

অনলাইন স্কুল

অনলাইন স্কুল এখন সময়ের দাবি মাত্র। একটি ভালো অনলাইন স্কুল প্লাটফর্ম তৈরি করতে পারলে লক্ষ লক্ষ অর্থ আয় করা সম্ভব। কোন আইডিয়ার উপর অনলাইন স্কুল ওপেন করবেন তা অবশ্য বড় চ্যালেঞ্জ।

বর্তমান সময় উপযোগি বিষয়ের উপর অনলাইন স্কুল ওপেন করতে পারলে তার সফলতা নিশ্চয় হবে। অবশ্য আমার ব্যক্তিগত সাজেশন হল বাংলাদেশ সরকার থেকে অনুমোদন নিয়ে কাজ শুরু করা। কারন আপনি যে ব্যবসায়িক আইডিয়া নিয়ে স্কুল ওপেন করতে চাচ্ছেন তা অন্য কেউ যেন করতে না পারে।

অনুমোদনের সাথে আরও একটি বিষয় জড়িত তাহল স্কুল সার্টিফিকেট প্রদান করা। সঠিক ভাবে সব কিছু শুরু করতে পারলে এই ব্যবসায় উন্নায়ন করা সম্ভব।

সফল ভাবে অনলাইনে ব্যবসা করার উপায়

মনের জানালা

মাইন্ড গেম

এমন একটি ব্যবসায়িক আইডিয়া অনলাইনে প্রকাশ করুন যেখানে মানুষ নিজেকে লুকিয়ে মনের কথা শেয়ার করতে পারবেন। কর্মব্যস্ত এই জীবনে নিজের মনের কথা শোনার মত লোকের বড় অভাব। সবাই ব্যস্ত নিজ নিজ ক্যারিয়ার নিয়ে কেউ কারো সাথে কথা বলার বা শোনার মত সময় নেই।

আপনি এমন একটি প্লাটফর্ম তৈরি করুন যেখানে মানুষ তার মনের কথা কোন বাঁধা ছাড়াই প্রকাশ করতে পারবে।

তবে এই ধরনের ওয়েবসাইট গুলো প্রচারণা করতে হয়। প্রচারণার উপর নির্ভর করবে আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটরের সংখ্যা। যত বেশি ভিজিটর বাড়বে তত বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইন আয়ের সহজ এবং কঠিন উপায়

পেইড কন্টেন্ট

পেইড কন্টেন্ট

আপনাদের মধ্যে অনেকেই Medium এই ওয়েবসাইটকে জানেন যেখানে মানুষ লেখার মাধ্যমে আয় করতে পারে। আপনি বাংলায় এমন একটি আইডিয়া স্থাপন করতে পারেন। বাংলায় সুন্দর লিখতে পারেন এমন মানুষদের আপনি আপনার ওয়েবসাইটে লেখার অনুমতি দিতে পারেন।

পেইড কন্টেন্ট বলতে, আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট কেউ ফ্রি পড়তে পারবে না। আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট পড়ার জন্য ভিজিটরদের মিনিমাম একটা পেমেন্ট করতে হবে।

আপনার ভিজিটরদের জন্য কিছু প্রিমিয়াম প্যাকেজ তৈরি করুন, যেমন প্রতি ১ বছর কন্টেন্ট পড়ার জন্য ১০০ বা ২০০ টাকা পেমেন্ট করতে হবে।

বিশ্বাস করুন প্রথম দিকে হয়তো তত বেশি জনপ্রিয়তা পাবেন না। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে আপনার ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা বাড়বে।

২০২১ সালে অনলাইন থেকে আয় করার কিছু উপায়

ইনভেস্টর এবং আইডিয়া মেকার

বাংলায় এমন কোন ওয়েবসাইট এখন নাই যেখানে ইনভেস্টর এবং আইডিয়া মেকার যোগাযোগ করতে পারে। আপনার কাছে অনলাইন ভিত্তি একটি ব্যবসায়িক আইডিয়া আছে কিন্তু অর্থ অভাবে শুরু করতে পারছেন না।

আবার একজনের কাছে টাকা আছে কিন্তু আইডিয়া নেই। সুতরাং আপনি এমন একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন যেখানে ইনভেস্টর এবং আইডিয়া মেকার পরস্পরের সাথে যোগাযোগ করতে পারে।

যখন একজন আইডিয়া মেকার ইনভেস্টারের সাথে যোগাযোগ করবে তখন সেই আইডিয়া মেকার কিছু টাকা আপনাকে পেমেন্ট করবে।

এড এবং ভিডিও দেখে আয় করতে চাওয়া কতটা যৌক্তিক

অনলাইন ব্যবসার সমস্যা

Online Business Problem

অনলাইন ব্যবসায়িক আইডিয়া প্রতিষ্টিত করার জন্য বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সম্নূখ হতে হয়। তার মধ্যে যে সব সমস্যা বেশি হয় সেই বিষয় গুলো নিয়ে একটু আলোচনা করা যাক।

অর্থঃ নতুনদের জন্য অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্টিত করা ক্ষেত্রে অর্থ একটি বড় সমস্যা। আপনার অর্থ না থাকলে যত বড় আইডিয়া হোক না কেন, সফল করতে পারবেন না। যদিও অনেক মানুষ বলে যে, মনের ইচ্ছা থাকলে অর্থ কোন বিষয় না। আমি ব্যাক্তিগত ভাবে এই বিষয়টা সাপোর্ট করি না।

সময়ঃ অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্টিত করার জন্য সময় খুবেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনি সময় দিতে না পারলে কখনো অনলাইনে ব্যবসায় সফল হতে পারবেন না। সাধারনত অফলাইন ভিত্তিক ব্যবসায় পণ্য ক্রয় করে বিক্রয় করলে লাভ করা যায়। কিন্তু অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসার ক্ষেত্রে প্রথমে ইনভেস্ট, দ্বিতীয় সময়, তৃতীয় আয়।

মার্কেটিংঃ অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসায়িক আইডিয়া ব্যর্থ হওয়ার কারন মার্কেটিং। সঠিক মার্কেটিং করার অভাবে অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্টিত করতে সমস্যা হয়। এবং অনলাইন ব্যবসার ক্ষেত্রে মোট ব্যয়ের ৮০% খরচ হয় মার্কেটিং করার জন্য। সুতরাং ভালো মার্কেটিং এজেন্সি দ্বারা আপনার আইডিয়ার প্রচারণা করতে না পারলে, সফল হতে পারবেন না।

অ্যাফিলিয়েট ব্লগ কিভাবে শুরু করব

ব্যবসায়িক আইডিয়া প্রতিষ্টিত করার উপায়

আপনি যখন কোন আইডিয়া নির্বাচন করবেন তখন তার উপর সার্ভে করতে হবে। সঠিক ভাবে সার্ভে করার পর ওয়েবসাইটের গঠনগত দিকের উপর লক্ষ রাখতে হবে। কারন একটি ওয়েবসাইটের সঠিক গঠনের উপর নির্ভর করবে গ্রহকের আগ্রহ। অবশ্য ওয়েবসাইটের গঠনগত দিক পর্যালচনা করার জন্য Usertester সহায়তা নিতে পারেন।

অনলাইন আইডিয়া প্রতিষ্টিত করার জন্য সঠিক বাজেট তৈরি করাটা জরুরি। বাজেট উপর নির্ভর করে সামনে লক্ষের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

আপনার আইডিয়া প্রতিষ্টিত করার মত অর্থ না থাকলে ইন্টারনেট ব্যবহার করে ইনভেস্টার খুঁজতে হবে। অনলাইনে সার্চ করলে অনেক ইনভেস্টার খুঁজে পাবেন। ইনভেস্টার খোঁজার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই একটি পিপিটি তৈরি করতে হবে।

কোন ইনভেস্টার আপনার আইডিয়া পছন্দ করলে তার উপর পিপিটি প্রেজেনটেশন দিতে হবে আপনাকে। সঠিক পিপিটি প্রেজেনটেশন দিতে না পারলে, ইনভেস্টার পাওয়া যাবে না।

মোট কথা সঠিক ভাবে সব কিছু করতে পারলে আপনার আইডিয়া বাস্তাবায়ন করার জন্য অর্থ পাবেন।

ইনভেস্টর খুঁজে পাওয়া যায় এমন একটি ওয়েবসাইট হল Gust। উক্ত ওয়েবসাইটে থেকে গিয়ে ইনভেস্টর খুঁজতে পারেন।

ডান থেকে বামে টানুন আরও পোষ্ট দেখার জন্য