অনলাইনে আয়ের সহজ এবং কঠিন পদ্ধতি

অনলাইন আয়ের সহজ উপায়

খুবেই অবাক লাগে, যখন কেউ আমাকে প্রশ্ন করে অনলাইন আয়ের সহজ উপায় আছে কী না। আমি একটা উদাহরন দিচ্ছি, আপনি ৮ ঘন্টা পরিশ্রম করে কত টাকা বেতন পান? বর্তমান সময় অনুযায়ি মিনিমাম ১৫,০০০ টাকা। তাহলে ঘন্টায় আয় করবেন ৬২.৫ টাকা।

একজন শিক্ষিত ব্যক্তি অথবা কঠিন পরিশ্রম করে অভিজ্ঞতা অর্জন করা ব্যক্তি প্রতি ঘন্টায় ৬২.৫ টাকা আয় করে। আর আপনি চাইছেন প্রতিমাসে ২০,০০০ হতে ২৫,০০০ টাকা আয় করতে। এটা কী সম্ভব! না সম্ভব নয়, কারন কঠিন পরিশ্রম করা ব্যতিত কোন কিছুই সম্ভব নয়।

তবে হ্যাঁ, আপনি মোটামুটি কম্পিউটার চালাতে জানলে কিছু কাজ করে অর্থ আয় করা সম্ভব। আমি কিছু কাজ নিয়ে আলোচনা করব যা, কিছু সহজ অনলাইন থেকে অর্থ আয় করার জন্য।

চলুন শুরু করা যাক……………….

ডাটা কালেকশন

data collection

কিছু সাধারন অভিজ্ঞতা থাকলে ডাটা কালেকশনের কাজ করতে পারবেন। ডাটা কালেকশনের কাজ করার জন্য যা যা জানতে হবে।

  • গুগল সার্চ করে কি ভাবে ডাটা কালেকশন করতে হয় তা জানতে হবে। হয়তো আপনি ভাবতে পারেন গুগল সার্চ করা এমন কি জটিল কাজ। কিন্তু সার্চ করে নিদিষ্ট তথ্য বের করার জন্য গুগল সার্চ কৌশল জানতে হবে।
  • গুগল থেকে সার্চ করা ডাটা গুলোকে ক্লাইন্টের চাহিদা অনুসারে এক্সেল সীটে সাজাতে হবে।

শুধু উপরের দুইটি কাজ জানা থাকলেই ডাটা কালেকশন করে অনলাইন থেকে অর্থ আয় করা সম্ভব। অবশ্য প্রতিটি ডাটা কালেকশনের কাজ একই নয়।

ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করার গাইডলাইন

প্রডাক্ট আপলোড

Product upload jobs

ই-কমার্স ব্যবসা প্রসার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিদিন হাজার হাজার ওয়েবসাইট তৈরি হচ্ছে ই-কমার্স ব্যবসার জন্য।সেই সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে এই সেক্টরে কর্মসংস্থানের।

ই-কমার্স ওয়েবসাইটে প্রডাক্ট আপলোড এবং বিস্তারিত লেখা একটি সময় সাপেক্ষ বিষয়। এই জন্য ই-কমার্স ব্যবসায়ি প্রডাক্ট আপলোডের জন্য ফ্রিল্যান্সার হায়ার করে থাকে।

ইউটিউবে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও পাবেন যা দেখে ওয়েবসাইটে পণ্য আপলোড করা শিখতে পারবেন। খুবেই সাধারন একটি কাজ ওয়েবসাইটে পণ্য আপলোড করা।

গুগল বিজ্ঞাপন মনিটাইজেশন করে অনলাইন থেকে আয় করুন

Web Scraping

Web Scraping

Web Scraping করার মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে তথ্য সংগ্রহ করার কাজ করতে হয়। তবে আপনি সেই সকল তথ্য সংগ্রহ করতে পারবেন যা ওই ওয়েবসাইটের মধ্যে থাকবে।

বিভিন্ন কারনে Web Scraping করার দরকার হয়। একটা উদাহরন দেওয়া যাক, আমি বাংলাদেশের বর্তমান উন্নায়ন নিয়ে রিসার্স করতে চাই। সেই ক্ষেত্রে সকল ওয়েবসাইট থেকে একজনের পক্ষে ডাটা কালেক্ট করা অসম্ভব।

অ্যাফিলিয়েট ব্লগ কিভাবে শুরু করবেন

ব্যক্তিগত সহায়তাকারী

office assistant

মিনিমান ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি গুলোর বিজনেজ এবং ব্যক্তিগত সহায়তাকারীর দরকার হয়। সাধরনত কাজের ধরন অনুযায়ি সহায়তাকারী কন্ট্রাট করা হয়।

আপনি একজন ভালো ওয়েবসাইট কন্টেন্ট ডিজাইনার। এখন আমার একজন কন্টেন্ট ডিজাইনার দরকার দুই হতে এক ঘন্টার জন্য। যে আমার ডিজাইন করা কন্টেন্ট গুলোর ডিজাইন চেক করবে।

সহায়তাকারী ঘন্টা প্রতি পেমেন্ট পেয়ে থাকে। মিনিমান পেমেন্ট হয়ে থাকে ৫ থেকে ৩০ ডলার পর্যন্ত। আপনার কাজ ভালো লাগলে বায়ার আপনাকে স্থায়ী ভাবে জব দিতেও পারে।

একজন স্থায়ী সহায়তাকারী প্রতি মাসে মিনিমাম ১৫০০০ থেকে ২০০০ ডলার পর্যন্ত বেতন পেয়ে থাকে।

আপনি যে কাজেই জানুুন না কেন তার উপর ভিত্তি করে ব্যক্তিগত সহায়তাকারী হতে পারবেন। ব্যক্তিগত সহায়তাকারী চাকরি পাওয়ার জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলোতে ট্রাই করতে পারেন।

কন্টেন্ট থেকে ভিডিও তৈরি করার অনলাইন কাজ

Data Analysis

Data Analysis work

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের দারিদ্র্যতার উপর একটি পাই চার্ট তৈরি করতে চাচ্ছেন। তাহলে প্রথমে ডাটা কালেক্ট করতে হবে বিভিন্ন দেশের সরকারী ওয়েবসাইট থেকে। তার পর নিদিষ্ট সফটওয়ার ব্যবহার করে পাই চার্ট তৈরি করতে হবে।

বর্তমান সময়ে ডাটা এনালাইটিক কাজে চাহিদা অন্য সব কাজের থেকে ভিন্ন। শুধু এই কাজ করার মাধ্যমে প্রতি মাসে ১০০০ থেকে ১৫০০০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

এই কাজের বড় সমস্যা হচ্ছে সফটওয়ার। আপনি ডাটা কালেক্ট করতে পারবেন কিন্তু তা ক্লাইন্টের চাহিদা অনুযায়ি সাজাতে হবে। কিছু কিছু কাজ মাইক্রোসফট এক্সেল ব্যবহার করে করতে পারবেন কিন্তু সকল কাজ করতে পারবেন না।

অবশ্য কিছু ফ্রি ডাটা এনালাইটিক সফটওয়ার পাবেন অনলাইনে। আপনি ইউটিউবে গিয়ে সার্চ করলে দেখবেন এই বিষয়ের উপর অনেক ভিডিও আছে।

Usertesting Website Review Freelancing Work

শেষ কথাঃ

অনলাইন থেকে সহজ ভাবে আয় করার মত কোন অপশন নেই। আপনাকে কষ্ট করে কাজ শিখে তারপর আয় করার জন্য অনলাইনে আসতে হবে। কাজ না জেনে আসলে খুব সহজে ব্যর্থ হয়ে ফিরে যেতে হবে।

তাই আমার ব্যক্তিগত সাজেশন হচ্ছে প্রথমে কাজ শিখুন তার পর আয় করার কথা চিন্তা করুন।

একটা কথা মনে রাখবেন অফলাইনে কাজ করে অর্থ আয় করার জন্য যেমন পরিশ্রম করতে হয় অনলাইনে সেই একই রকম।

সুতরাং নিজেকে আপডেট করুন, কিছু কৌশল অবলম্বন করুন, সফলতা আপনার হাতের মুটোয় চলে আসবে।

সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে এখানেই শেষ করছি।

ভালো থাকবেন

বিস্তারিত আরও পড়ুর