ফ্রি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখুন এবং ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন

গ্রাফিক্স ডিজাইন বর্তমান সময়ের সব থেকে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং ওয়ার্ক। এই লেখার মধ্যে আমি যে বিষয় গুলো কভার করব গ্রাফিক্স ডিজাইন কত প্রকার, কিভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইনের বিষয় নির্বাচন করব, ফ্রি গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার ওয়েবসাইট এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ কোথায় পাওয়া যাবে?

আপনি কষ্ট করে লেখাটি পড়া শেষ করলে গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে সকল ধরনের প্রশ্নের উত্তর পাবেন আশা করছি।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কত প্রকার

গ্রাফিক্স ডিজাইন কত প্রকার সঠিক ভাবে কেউ বলতে পারবে না। আমি চেষ্ট করছি কিছু পপুলার গ্রাফিক্স ডিজাইন সার্ভিস নিয়ে কথা বলার।

লোগো ডিজাইনঃ যে কোন নতুন কোম্পানির জন্য লোগো কমন বিষয়। এই কারনে বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং মাকের্ট গুলোতে লোগো ডিজাইনারের অনেক চাহিদা। আপনি আপনার অনলাইন ক্যারিয়ার লোগো ডিজাইন দিয়ে শুরু করতে পারেন।

অবশ্য একজন লোগো ডিজাইনারের ক্রিয়েটিভ জ্ঞান থাকা দরকার। তবে সেটা কোন বিষয় নয়। আপনি আজকে কাজ শুরু করলে একটা পর্যায় গিয়ে দেখবেন আপনি একজন নাম করা লোগো ডিজাইনার হতে পারেন।

কাজ করতে কারতে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় হবে। কিভাবে একজা ভালো লোগো ডিজাইনার হওয়া হয় এর উপর গুগলে সার্চ দিলে অনেক লেখা পাবেন। যা দেখে এবং পড়ে আপনি আপনার অভিজ্ঞতা বাড়াতে পারবেন।

ট্যাটু ডিজাইনঃ বিশেষ করে ইউরোপ মহাদেশের দেশ গুলোতে ট্যাটু ডিজাইন তুমুল জনপ্রিয় একটি পেশা। কিন্তু অনেক ব্যাক্তি আছে যারা তাদের ট্যাটুকে একটু ভিন্ন ভাবে করতে চায়। ভিন্ন ভাবে বলতে অনকমন বা ইউনিক করতে চায়।

যা এর আগে কেউ করেনি। এই কারন অনলাইন প্লাটফর্ম গুলো প্রফেশনাল ট্যাটু ডিজাইনারের চাহিদা তৈরি হচ্ছে। বলতে পারেন নতুন একটি প্লাটফর্ম তৈরি হচ্ছে ট্যাটু ডিজাইন কাজকে ঘিরে।

স্টোরি বোর্ড ডিজাইনঃ যে কোন সমাজিক কর্ম কান্ড ব্যাখ্যা করার জন্য ষ্টোরি বোর্ড ডিজাইনারের দরকার হয়। ধরুন, করোনা ভাইরাস থেকে কিভাবে সুরক্ষা পাওয়া যাবে তার উপর একটি লিপলেট তৈরি করতে চাচ্ছি।

আমি এমন ভাবে লিপলেট টি তৈরি করতে চাচ্ছি , যা দেখে মানুষ যেন বুঝতে পারে ভাইরাস থেকে মুক্ত পাওয়ার জন্য কি কি করতে হবে অথবা কিভাবে করতে হবে।

সুতরাং আপনি একজন স্টোরি টেলার ডিজাইনার হলে আমি আপনাকে হায়ার করব। এবং এই ধরনের কাজের চাহিদা বর্তমানে মাকের্ট প্লেসে অনেক।

বুক কভার ডিজাইনঃ বিভিন্ন ধরনের প্রকাশনা কোম্পানি গুলো তাদের বইয়ের কভার ডিজাইন করার জন্য বুক কভার ডিজাইনার ডিজাইন করে থাকে।

শুধু প্রকাশনা কোম্পানি গুলো নয়, অনেক লেখক নিজের বইয়ের কভার ডিজাইন করার জন্য এই ধরনের ফ্রিল্যান্সারদের হায়ার করে থাকে।

একটা বইয়ের বিষয় বস্তুর গুরুত্ব বহন করে বইয়ের কভার। সুতরাং আপনি একজন কভার ডিজাইনার হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন।

জুয়েলারি গ্রাফিক্স ডিজাইনঃ যদিও মাকের্টে এর চাহিদা নতুন করে সৃষ্টি হচ্ছে। তার পরেও আমি বলব এই পেশার ভবিষ্যৎ আছে।

মানুষ কাছে দিন দিন আরটিফেশিয়াল কাজের চাহিদা সৃষ্টি হচ্ছে। তাছার বড় বড় কোম্পানি গুলো তাদের গহনার নিত্য নতুন ডিজাইন সৃষ্টি করার লক্ষে জুয়েলারি ডিজাইনার হায়ার করে থাকে।

প্রথম শ্রেনির জুয়েলারি ডিজাইনার প্রতি মাসে ১০০০ থেকে ২০০০ ডলার পর্যন্ত আয় করে থাকে।

টি-শার্ট গ্রাফিক্সঃ বর্তমানে টি-শার্ট ডিজাইনের জনপ্রিয়তা প্রচুর। টি-শার্ট ডিজাইনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ধরনের প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়।

গুগলে গিয়ে সার্চ করলে দেখবেন হাজার হাজার প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়েছে। তাছারা আপনি শুধু টি-শার্ট ডিজাইন করে বিভিন্ন অনলাইন মাকের্ট প্লেস থেকে হাজার হাজার ডলার আয় করতে পারবেন।

tshirt design contest

অবশ্য এর জন্য আপনাকে অনেক কিছুর উপর ভিত্তি করে টি-শার্ট ডিজাইন করতে হবে। এবং অনেক বেশি গ্রাফিক্স ডিজাইনার টি-শার্ট ডিজাইন পেশার সাথে নিজেকে যুক্ত করছে।

ইনফোগ্রাফিক্সঃ প্রতিটি বিজনেজ ব্লগ সাইটের জন ইনফোগ্রাফিক্স ডিজাইন করা হয় ব্যাকলিং তৈরি করার জন্য।

প্রতিটি ইনফোগ্রাফিক্স ডিজাইন করার জন্য ৩০ থেকে ৪০ ডলার পর্যন্ত পেমেন্ট করা হয়। যদিও ইনফোগ্রাফিক্স ডিজাইন করার থেকে তথ্য ইনপুট করাটা বেশি পরিশ্রমের।

সেক্ষেত্রে অনেক সময় বায়ার তথ্য প্রদান করে থাকে। আপনাকে শুধু তথ্য গুলোকে সুন্দর ভাবে সাজিয়ে লিখতে হবে।

প্রোডাক্ট ডিজাইনঃ যে কোন ধরনের পণ্য বাজারজাত করার আগে তার ডিজাইন করা হয়।

প্রোডাক্ট ডিজাইন একটি পণ্যের জন্য খুবেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সাধারন অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ প্রোডাক্ট ডিজাইনার হায়ার করা হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যানার ডিজাইনঃ প্রতিটি কোম্পানির সোশ্যাল মিডিয়া পেজ আছে। প্রতিটি পেজের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া ব্যানার ডিজাইন করতে হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যানার ডিজাইন করার জন্য অতিরিক্ত অভিজ্ঞতার দরকার হয় না। আপনি কয়েক দিন ট্রাই করলে ভালো ব্যানার ডিজাইন করতে পারবেন।

একটি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যানার ডিজাইন করার জন্য ১০ থেকে ২০ ডলার পর্যন্ত পেমেন্ট পেতে পারেন।

প্যাটেন ডিজাইনঃ সাধারনত কোন পণ্য বা সেবার মোরক কভার করার জন্য প্যাটেন ডিজাইন করা হয়। অনেক সময় বাসা বাড়ির দেওয়াল কভার করার জন্য প্যাটেন আর্ট করা হয়।

একজন উন্নত পর্যায়ের গ্রাফিক্স প্যাটেল ডিজাইনার হওয়ার জন্য অনেক অভিজ্ঞতার দরকার হয়।

মোবাইল ডাটা এন্ট্রি এবং টাইপিং কাজ

গ্রাফিক্স ডিজাইন এবং ফটোশপ কোথায় শিখবেন

গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার আগে বিষয় নির্বাচন করুন। আপনি কোন বিষয় নিয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে চান তা বাছাই করতে হবে।

কারন, আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি যে কোন একটি বিষয় বাছাই করে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখা উচিত।

ফটোশপ Design শেখার ওয়েবসাইট

DigitalArts

Photoshop Tutorials

Photoshopessentials

Photoshop Tutorial Youtube Website

উপরে উল্লখ করার প্রতিটি ওয়েবসাইট পারফেক্ট ডিজাইন শিখার জন্য। আপনি সম্পূর্ণ ফ্রি ভাবে ফটোশপ ডিজাইন শিখতে পারবেন উপরের উল্লখ করা ওয়েবসাইট গুলো থেকে।

কিছু কিছু ওয়েবসাইট আছে যেখান থেকে আপনি ফ্রি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারবেন। অবশ্যই এই সকল ওয়েবসাইট দুই ধরনের কোর্স পাওয়া যায়। এক ফ্রি এবং পেইড কোর্স। আপনি প্রথমে ফ্রি কোর্স করুন ভালো লাগলে পেইড কোর্স করতে পারবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ শেখার ওয়েবসাইট

Udemy

আপনি Udemy ওয়েবসাইটে থেকে যে কোন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ক্রয় করতে পারবেন। তুলনামূলক ভাবে Udemy কোর্স এর মূল্য অনেক কম। যদি গড় হিসাব করেন তাহলে প্রতি ১৫ থেকে ২০ ডলারের মধ্যে প্রতিটি কোর্স ক্রয় করতে পারবেন।

Udemy Graphic design work

lynda

lynda ওয়েবসাইটে ফ্রি ১ মাসের সাবসক্রাইব নিয়ে যে কোন কোর্স করতে পারবেন। lynda ওয়েবসাইটে ফ্রিল্যান্সিং ওয়ার্ক রিলেটেড সকল ধরনের কোর্স পাওয়া যায়।

Graphic Design

Tutsplus

TutsPlus ওয়েবসাইটের বেশির ভাগে কোর্স ফ্রি। আপনি যে কোন গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স ফ্রি করতে পারবেন। আপনি ডিজিটাল মাকের্টিং বিষয় কোন কোর্স করতে চাইলে নিচের ওয়েবসাইটি ঘুরে আসতে পারেন।

tutsplus Graphic website

গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার জন্য প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

উপরে লিষ্ট করা সফটওয়্যার গুলো অরজিনাল ভার্সন ব্যবহার করতে চাইলে আপনাকে ক্রয় করতে হবে। আপনি টরেন্ট ডাউনলোড করতে পারলে উপরের কিচু সফটওয়্যার মাকের্ট থেকে ফ্রি ডাউনলোড করতে পারবেন।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ পাওয়ার ওয়েবসাইট

যে কোন ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটে গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ পাওয়া যায়। তার পরেও কিছু কিছু ওয়েবসাইট আছে যেখানে শুধু গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজের জন্য তৈরি করা হয়েছে।

আমি এমন কত গুলো ওয়েবসাইট নিয়ে আলোচনা করছি যা গ্রাফিক্স ডিজাইন উপর কাজ দিয়ে থোকে।

99Design: প্রতিটি গ্রাফিক্স ডিজাইনার নিজের পোর্টফলিও তৈরি ক্লাইন্ট পাওয়া জন্য। আপনি ডিজাইন ৯৯ ওয়েবসাইটে ফ্রি পোর্টফলিও তৈরি করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে অনেক ধরনে ডিজাইন প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে। আপনি যে কোন ডিজাইন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করে প্রাইজ জয় করতে পারেন।

তাছাড়া ডিজাইন প্রতিযোগিতা অংশ গ্রহন করার মাধ্যমে বায়ারের সাথে পরিচিতি বাড়াতে পারেন। আপনি একজন উচ্চ মানের গ্রাফিক্স ডিজাইনার হয়ে থাকলে অবশ্যই ৯৯ডিজাইন ওয়েবসাইটে আপনার প্রোফাইল খুলতে পারেন।

Crowdspring: Crowdspring ৯৯ডিজাইনের সমান মানের একটি ওয়েবসাইট। যদিও Crowdspring জনপ্রিয়তা ৯৯ ডিজাইনের থেকে কম। তার পরেও Crowdspring ওয়েবসাইট একজন নতুন ফ্রিল্যান্সার জন্য উপযুক্ত স্থান।

Designcrowd: ওয়েবসাইট রিলেটেড ডিজাইন সহ সকল ধরনের গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করার জন্য designcrowd পারফেক্ট ওয়েবসাইট। ফ্রিল্যান্সার হিসাবে জয়েন করার পর, বিভিন্ন প্রজেক্টে বিড করার অপশন পাবেন।

এই ওয়েবসাইটে প্রায় ৯ লক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইনার আছে। এই ওয়েবসাইটে কাজ পাওয়াটা খুব কঠিন কাজ নয়। কিন্তু আপনাকে জানতে হবে কিভাবে বিড করে কাজ নিতে হবে।

Designcontest: কোন ডিজাইন কনটেষ্টে অংশ গ্রহন করে অর্থ আয় করতে চাইলে Designcontest উপযুক্ত স্থান। এই ওয়েবসাইটে ডিজাইন কনটেষ্টে অংশ গ্রহন করা ফ্রিল্যান্সাদের সাথে ১ম, ২য় এবং ৩য় স্থান নির্ধারন করা হয়। আপনি ক্রিয়েটিভ ডিজাইনার হয়ে থাকলে ডিজাইন কনটেষ্টে ওয়েবসাইটে জয়েন করতে পারেন।

48hourslogo: লোগো ডিজাইন করার জন্য অনেক জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট ৪৮ ঘন্টার লোগো। এখানে বিভিন্ন ধরনের লোগো ডিজাইন করার উপর প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। ক্লাইন্ট ডিজাইনাদের লোগোর একটি আইডিয়া প্রদান করে।

আইডিয়া দেওয়ার সাথে সাথে ক্লাইন্ট আপনাকে কিছু নির্দশনা প্রদান করবে। যা আপনার তৈরি করা লোগোর মধ্যে থাকতে হবে। প্রতিযোগিরা সেই আইডিয়া অনুসারে ডিজাইন তৈরি করে প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করে থাকে। প্রতিটি প্রতিযোগিতার জয়ী প্রাইজ মূল্য ৯৯ ডলার থেকে শুরু হয়।

অনলাইন ড্রয়িং শেখার ওয়েবসাইট

অনেকে বলে থাকে ড্রয়িং জন্মগত ভাবে শেখার একটি বিষয়। কিন্তু আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি যে কেউ প্রাকটিস করলে ড্রয়িং শিখতে পারে।

Drawspace

drawspace

আপনি ভালো মানের ড্রয়িং জানা থাকলে ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলো থেকে আয় করতে পারবেন। নিজের বেড রুম, ড্রয়িং রুম, করপোরেট অফিস সহ সকল ধরনের ইন্টোরিয়ার ডিজাইন কাজের জন্য প্রফেশনাল ড্রয়িং আর্টিস হায়ার করা হয়।

বিস্তারিত আরও পড়ুর

error: Content is protected !!