বিশ্বাস যোগ্য মোবাইলে গেম খেলে টাকা আয় করার উপায়

অতিরিক্ত অর্থ আয় করার জন্য মোবাইলে গেম খেলে টাকা আয় করার উপায় একটি মাধ্যমিক মানের আইডিয়া। যদিও আমি ব্যক্তিগত ভাবে গেম খেলে টাকা আয় করার পথকে সাপোর্ট করি না। তার পরেও এক্সট্রা অর্থ আয় করার জন্য গেম খেলতে পারেন।

অনলাইন গেম কি সত্যি পেমেন্ট করে?

হ্যাঁ অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করা যায়। যদিও অনেক বেশি নয়, তার পরেও আপনি ট্রাই করতে পারেন। গেম খেলে টাকা আয় করার জন্য সঠিক প্লাটফর্ম নির্ধারন করাটা জরুরি। সঠিক প্লাটফর্ম নির্ধারন করতে না পারলে আয় করতে পারবেন না।

বেশি সংখ্যক অনলাইন গেমিং প্লাটফর্ম পয়েন্ট দিয়ে থাকে। পরর্বতীতে সেই পয়েন্ট দিয়ে আপনাকে গিফট কার্ড নিতে হবে।

কোন পার্টনার প্লাটফর্ম মাধ্যমে মোবাইল ফোনে গেম খেললে টাকা পাওয়ার সম্ভবনা বেড়ে যায়। যেমন Swagbucks একটি প্লাটফর্ম যার মাধ্যমে আপনি গেম খেলে আয় করতে পারেন।

অনলাইন গেম খেলে কত টাকা আয় করা যায়?

অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করার বিষয়টা কম্বানাইশন, টাইম, এবং ভাগ্যের উপর নির্ভর করে।

একজন প্রফেশনাল গেমার বছরে ৬০,০০০ থেকে ৯০,০০০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করে থাকে। এবং একজন প্রথম শ্রেণীর গেমার প্রতি ঘন্টায় ১৫,০০০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করে।

অনলাইন গেম এক ধরনের অনন্দ করার জায়গা। অনেক সময় নিজেকে রিক্রিয়েশন করার জন্য অনলাইন গেম সহযোগিতা করে।

কিছু কিছু অনলাইন গেমিং প্লাটফর্ম যারা তাদের অর্থ বন্টনের হিসাব রাখে। আপনি যে কোন অনলাইন প্লাটফর্ম রিভিউ দেখে কাজ করতে পারেন।

মনে রাখবেন গেম যে কোন সময় পরির্বতন হতে পারে। আপনি ভালো ফর্ম করেন কিন্তু দেখলেন সেই মোবাইল গেমটি পরর্বতীতে দিনে নাই।

কোন ধরনের গেম রিয়েল অর্থ প্রদান করে

সাধারনত ভিডিও গেম ডিরেক্ট অর্থ প্রদান করে থাকে। ভিডিও গেমের বিভিন্ন ধরনের টুরনামেন্ট এবং লেভেল আপ, অথবা একজন ভালো মানের খেলোয়ার ইস্টিমার হয়ে অর্থ আয় করতে পারেন।

বিশ্ব মানের গেম প্লেয়ার Tyler Blevins, যার স্ক্রিন নাম Ninja। এই ব্যক্তি গেম খেলে ১০ মিলিয়ন ডলার আয় করেছেন। তার একটি ইউটিউব চ্যানেল আছে এবং বর্তমানে সে এখন সোশ্যাল মিডিয়া পারসোনালিটি। কিছু দিন আগে Tyler Blevins একটি বই প্রকাশ করেন “How to get good at gaming?”

একজন প্রফেশনাল ভিডিও গেম প্লেয়ারের জন্য eSports উপযুক্ত স্থান। গত বছরে eSports গেমে প্রায় ৪৩০০ টুরনামেন্ট হয় এবং ৭ মিলিয়িন ডলার খরচ করা হয়।

আবার অনেক Mobile Phone গেমার আছে যার As a Game Tester হয়ে অর্থ আয় করে থাকে। আপনার গেম খেলার অভিজ্ঞতা শেয়ার করে অর্থ আয় করতে পারবেন। গেমিং অভিজ্ঞতা শেয়ার করার জন্য Xbox, Playstation and Nintendo।

Slot Machines অনলাইন থেকে মোবাইল গেম খেলে অর্থ আয় করার জন্য অপর একটি পথ। Slot Machines আপনি মোবাইল ফোনে খেলতে পারবেন। তাবে Slot Machines খেলার জন্য প্রথমে আপনাকে ডিপোজিড করতে হবে। ডিপোজিড করার জন্য আপনি সাইন-আপ মানি পাবেন।

৮% মোবাইল ফোন ইউজার কেসিনো Android গেম খেলে থাকে। যদিও গুগল প্লে স্টোরে পে গেম লিমিট করে দেওয়া হয়েছে। এ্যাপেল স্টোর কেসিনো গেম গুলোকে কোন ধরনের র‌্যাঙ্ক দেওয়া হয় না।

Online Poker একটি গেম ব্যালিং এজেন্সি। কিছু কিছু স্থানে মোবাইল গেম খেলে অর্থ জেতা যায়। সব জায়গার জন্য যদিও সম্ভব নয়।

গেম খেলে আয় করা অর্থ উত্তোলন করা হয় কিভাবে?

প্রতিটি Mobile গেমিং সাইট ভিন্ন ভিন্ন ভাবে পেমেন্ট করে থাকে। কোন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর পেমেন্ট অপশন সহ অন্য পলিসি গুলো দেখে নেওয়া উচিত।

প্রথমে দেখুন সেই ওয়েবসাইটের পেমেন্ট অপশন। তারা কিভাবে পেমেন্টে করে থাকে? গিফট কার্ড, অনলাইন কারেন্সি, প্রিপেইড কার্ড, ইত্যাদি।

কোন কোন ওয়েবসাইট মাসে একটি নিদিষ্ট দিনে পেমেন্ট করে থাকে। আবার কিছু কিছু ওয়েবসাইট নিদিষ্ট পরিমান অর্থ ছারা পেমেন্ট করে না। সুতরাং কোন গেমিং ওয়েবসাইটে অ্যানড্রেয়েড গেম খেলার আগে চেক আপ করে নেওয়া উচিত।

পড়ালেখা বা চাকরির পাশাপাশি যে অনলাইনের কাজ গুলো করা যায়

৭টি অনলাইনে গেম খেলের ওয়েবসাইট ২০২১

যে সকল ওয়েবসাইট থেকে গেম খেলে আয় করা যায় তার একটি নিষ্ট তুলে ধরা হল।

১. Swagbucks

Swagbucks ওয়েবসাইট ব্যবহার করে আপনি অনেক অনলাইন মোবাইল গেমে সরাসরি প্রবেশ করার অনুমতি পাবেন। Triva অনলাইন গেমের কথা আপনি জেনে থাকবেন। এই গেমে আপনি সরাসরি প্রবেশ করতে পারবেন Swagbucks ব্যবহার করে। Triva Mobile গেম খেলে আপনি অনলাইন কারেন্সি আয় করতে পারবেন এবং পরর্বতীতে কারেন্সি ডলারে কনভার্ট করা যায়।

আপনি Swagbucks প্লাটফর্ম ব্যবহার করে সত্যিকারের অর্থ আয় করতে পারবেন। প্রতিটি গেম থেকে আপনি Swagbucks কারেন্সি আয় করা যায়। পরর্বতীতে Swagbucks কারেন্সিকে গিফট কার্ড, ভিসা রিওয়ার্ড কনভার্ট করতে পারবেন।

Swagbucks থেকে আয় করার আরও কিছু উপায় হল ভিডিও দেখা, সার্ভে করা, ওয়েবসার্চ করা, ইত্যাদি।

২. Solitaire Cube

জনপ্রিয় কার্ড গেম ওয়েবসাইট। এখানে প্রতিটি রাউন্ড ২ থেকে ৩ মিনিটের মধ্যে শেষ করা হয়।

আপনি চাইলে সমস্ত বিশ্বের কার্ড গেমারদের সাথে এই খেলা খেলতে পারবেন। ইউএস সহ আশে পাশের দেশ গুলোর মধ্যে খেলোয়ারদের সাথে টুরনামেন্ট খেলে আয় করা যায়।

আপনি ২৫ ডলার ডিপোজিড করে এক সপ্তাহে ১২৫ ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। টপ লেভেলের একজন প্লেয়ার ৩৫০,০০০ ডলার পর্যন্ত আয় করা যায়।

৩. 21 Blitz

Blackjack with Solitaire খেলার জন্য পারফেক্ট কম্বাইনেশন। প্রাকটিসের করার জন্য ফ্রি ডাউনলোড করতে পারবেন।

খেলার জন্য নিজেকে সম্পূর্ণ ভাবে তৈরি করতে হবে। আপনি নিজেকে সম্পূর্ণ ভাবে খেলার জন্য প্রস্তুত করতে পারলে ক্যাশ দিয়ে খেলা শুরু করা যায়।

৪. Slingo

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় অনলাইন পেলে গেম। আপনি এই গেমটি মোবাইলে এবং কম্পিউটারে খেলতে পারবেন। খেলে আয় করা টাকা ভিয়া পেপালের মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

৫. Lucktastic

১ বিলিয়নের বেশি মানুষ এই গেমটি মোবাইলে খেলে থাকেন। এবং এই গেমটি আপনি ফ্রি খেলতে পারবেন। শুধু খেলার প্রথম বা শেষ পর্যায়ে বিজ্ঞাপন দেখা যায়।

এখানে শেখার বিষয়টা নির্ভর করে Scratch cards খেলার জন্য কত জন মানুষ অংশ গ্রহন করছে।

৬. Slotomania

রিয়েল ক্যাসিনো গেম খেলতে চাইলে Slotomania অন্যতম পন্থা। গোটা বিশ্বের ১০০ মিলিয়ন প্লেয়ার Slotomania মাধ্যমে ক্যাসিনো গেম খেলে থাকে। এটা সম্পূর্ণ ফ্রি খেলা যায়। কিন্তু আপনার একাউন্টে থাকতে হবে কয়েন।

আপনি প্রথম অবস্থায় ফ্রি কয়েন পাবেন কিন্তু পরর্বতীতে আপনাকে কয়েন ক্রয় করতে হবে।

৭. 888poker

অন্তর্জাতিক মানের অনলাইন Poker ফোন গেম খেলতে চাইলে 888poker উপযুক্ত প্লাটফর্ম। তাছাড়া আপনি Texas Hold ‘em, Seven Card Stud, Omaha High/Low and More গেম খেলতে পারবেন। এই খেলার টাকা খুব সহজে ক্যাশ আউট করা যায়।

বি.দ্রঃ উপরের গেম নিয়ে আলোচনা করা ওয়েবসাইট গুলো থেকে গেম খেলার পর কোন অর্থ জনিত সমস্যার সৃষ্টি হলে মাইবিডিব্লগ এর দায় ভার গ্রহন করবে না।

আসলে ব্যক্তি গত ভাবে আমি কোন ভাবে অনলাইন গেমিং প্লাটফর্মকে সাপোর্ট করি না। আমি মনে করি গেমিং প্লাটফর্ম শুধু সময় নষ্ট করার জন্য তৈরি হয়েছে। যদিও গেমিং ইন্ড্রাট্রিজ কে ঘিরে নতুন নতুন উদ্ভাবন হচ্ছে।

আপনি Mobile গেম খেলে টাকা উপার্জনের কথা চিন্তা না করে। গেম কিভাবে তৈরি করে তার চিন্তা করলে বেশি সফল হতে পারবেন।

আর অনলাইন থেকে আয় করতে চাইলে ব্লগিং শুরু করতে পারেন। আমরা সম্পূর্ণ ব্লগিং কোর্স ফ্রি দিয়ে থাকি। সাথে ব্লগ সাইট তৈরি থেকে শুরু করে ব্লগ সম্পকির্ত সকল বিষয়ে কাজ করে থাকি।

আজীবন আয় করুন মাত্র ৫০০০ হাজার টাকায় ব্লগ সাইট তৈরি করে।

ধন্যবাদ

ভালো থাকবেন

ডান থেকে বামে টানুন আরও পোষ্ট দেখার জন্য

error: Content is protected !!