অনলাইন পরামর্শক আয় একজন পরামর্শক হয়ে যে ভাবে আয় করবেন

অনলাইন পরামর্শক আয়

অনলাইন পরামর্শক আয় : সময় এর সাথে সাথে সব কিছুই পরির্বতন হচ্ছে। বর্তমান সময় মানুষ কোন কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া আগে দশ বার চিন্ত করে। এখন প্রশ্ন হল মানুষ কোন কিছু করার আগে কেন অন্যের কাছে পরামর্শ নিবে।

এই বিষয়টা ভালো ভাবে বোঝার জন্য একটা উদাহরণ দেওয়া যাক।

ধরুন, আপনি ইউএসএ পড়ালেখা করতে চান। কিন্তু যে দেশে পড়তে যেতে চাচ্ছেন সেই দেশ এর পড়ালেখা বিষয় আপনার কোন ধরনা নেই। কি ভাবে পড়বেন? কোথায় এডমিশন নিবেন? কোন ইউনির্ভারসিটি ভালে হবে। কি কি করতে হবে ইত্যাদি।

এখন আপনি একটি এজেন্সির কাছে গেলেন যারা আপনাকে সহযোগিতা করবে। অথবা এমন একজনের সাথে কন্ট্রাক করলেন যে এই বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকে।

প্রশ্ন হল আপনি এমন কোন বিষয়ে খুব ভালো জানেন। যার জন্য আপনি পরামর্শ দিতে পারবেন।

আমি একটা অনলাইন পরামর্শ আয় এর লিষ্ট দিচ্ছিঃ

  • অনলাইন ব্যবসার
  • রাজনৈতিক
  • মার্কেটিং
  • শিক্ষা
  • ক্যারিয়ার
  • বিউটি
  • সিকিউরিটি
  • ব্যবসায়িক

একজন পরামর্শক ব্লগিং করে আয় করতে পারেন।

অনলাইন পরামর্শক আয় করার বিভিন্ন উপায়

যদি এশিয়া মহাদেশের মধ্যে এই ক্যালচার এখনও পুরোপুরি তৈরি হয়নি। তবে এর চাহিদা যে দিন দিন বৃদ্বি পাচ্ছে তা কিন্তু বোঝা যাচ্ছে। কারন আপনি যখন নতুন কোন কিছু করতে চান তখন ইউটিউব গুগলে সার্চ দিয়ে জানার চেষ্টা করে সেই বিষয়।

এই যে আপনি ইউটিউব বা গুগলে সার্চ দিয়ে জানার চেষ্ট করেন এর কারন একটাই সঠিক গাইড লাইন এর জন্য।

এখন প্রশ্ন হল ইউটিউব গুগল এর মত বড় বড় পরামর্শ দাতা থাকার পরেও কেন পরামর্শ লাগবে। এর উত্তরে আমি বলব আপনি যতই ভিডিও দেখেন অডিও শুনেন এবং অ্যারটিক্যাল পড়েন না কেন, স্কুল কলেজ কিন্তু লাগবেই।

সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার অনলাইন কাজ

১. ফ্রিল্যান্সার পরামর্শক

আপনি একজন ওয়েবসাইট সিকিউরিটি এক্সপার্ট। আমার একটা ছোট এজেন্সি আছে অনলাইনে অথবা আমার একটি ই-কর্মাস ওয়েবসাইট আছে।

আমার ই-কমার্স ব্যবসা ভালো চলছে। হঠাৎ করে দেখলাম আমার ওয়েবসাইটে সব কিছু এলোমেলো কোন কিছু ঠিক করা যাচ্ছে না। এমন অবস্থায় আমি কি করব! আমার এতো দিনের পরিশ্রম স্বপ্ন সব কি শেষ!

উপরের কথাটা সত্য এর একটা ওয়ার্ড মিথ্যা নয়।

এখন আমি একজন অনলাইন সিকিউরিটি পরামর্শক। আমি জানি আপনার ওয়েবসাইটকে কি ভাবে সুরক্ষিত রাখতে হবে। আপনি আমাকে একটি নিদিষ্ট ফি প্রদান করে সেই উপায়টা জেনে নিলেন, যে কি ভাবে আপনাকে সর্তক থাকতে হবে।

মাইক্রো ওয়ার্ক করে অনলাইন থেকে আয় করার উপায়

২. অনলাইন ব্যবসা

সময় এর সাথে তাল মিলানোর জন্য অফলাইন ব্যবসাকে অনলাইনে নিয়ে যাওয়াটা জরুরি। জরুরি শুধু নয় বলতে হবে, সময় এর দাবি।

আমি আমরা ব্যবসাকে অনলাইনে নিয়ে যেতে চাই কিন্তু আমি জানি না কি ভাবে শুরু কবর। এক্ষেত্রে আমাকে সহযোগিতা করতে পারে একমাত্র একজন অনলাইন ব্যবসায়িক পরামর্শক।

একজন ব্যবসায়িক পরামর্শক আমাকে এ টু জেড সহযোগিতা করতে পারবে। আমি জানতে পারব কি ভাবে ব্যবসা শুরু করব। কত টাকা খরচ হবে? কি কি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে? ইত্যাদি।

Online Business আইডিয়া

আপনি খুব ভালো করে জানেন যে অনলাইনে কোন ব্যবসা ভালো এবং কী ভাবে করা উচিত। সুতরাং আপনি কোন এজেন্সি হয়ে অথবা নিজে একটি এজেন্সি ওপেন করে ব্যবসা করতে পারেন।

অনলাইন ভিত্তিক নতুন ব্যবসায়িক আইডিয়া

৩. মার্কেটিং পরামর্শক

আপনি দীর্ঘ দিন একটি কোম্পানির মার্কেটিং বিভাবে কাজ করেছে বর্তমানে অবসর গ্রহন করেছেন। সে ক্ষেত্রে আপনার যে মার্কেটিং উপর যে অভিজ্ঞতা তার উপর নির্ভর করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন।

আমার নতুন কোম্পানি আমি বুঝতে পারছি না কি ভাবে মার্কেটিং করব। আমি যে একজন মার্কেটার রাখব সেই সামর্থ্য নেই। সুতরাং কারো সাজেশন নিয়ে আমাকে আপাতত কাজ করতে হবে এবং সেই জন্য অনলাইন একমাত্র ভরসা।

আপনি একজন মার্কেটিং পরামর্শক হয়ে থাকলে আমাকে সহযোগিতা করতে পারেন এবং এর বিনিময় আমি আপনার ফ্রি প্রদান করব।

সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হয়ে অনলাইন থেকে টাকা আয়

৪. ক্যারিয়ার পরামর্শক

বর্তমান সময় এর জন্য চাহিদা সম্পূর্ণ পেশা ক্যারিয়ার পরামর্শক। আপনি যদি না জানেন বর্তমান সময় কোন ধরনের চাকরির চাহিদা বেশি অথবা কেন ধরনের চাকরির চাহিদা বেশি হতে পারে তাহলে আগামীতে আপনি চাকরি পাবেন না এটাই স্বাভাবিক।

বর্তমান এর কথাই আলোচনা করা যাক। এই সময়ে শুধু আর্নাস মাস্টার্স পাশ করলে ভালো চাকরি পাওয়া সম্ভব নয়। হাজার হাজার বেকার শিক্ষত যুবক চাকরি না পাওয়ায় হতাশায় ভুগছে এর একটাই কারন, সময় অনুসারে নিজেকে না তৈরি করা।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর কথাই ধরা যাক

প্রতি দিন হাজার হাজার চাকরির চাহিদা কিন্তু যোগ্য প্রার্থী নেই। কারন একটাই আমরা পড়ালেখার করার সময় এক্সট্রা কিছু না জানা বা শেখার জন্য।

একজন শিক্ষত যুবক যদি পড়ালেখার পাশাপাশি ডিজিটাল মার্কেটিং এর কোর্স করত এবং দুই হতে তিনটি কোম্পানিতে ইন্টার্নশিপ করত তাহলে কি চাকরির সমস্যা হত।

আরও এক জায়গায় সমস্যা আছে তাহল আপনি হয়তো জানেন না, কি জানতে হবে এবং শিখতে হবে। আপনি জানলে হয়তো নিজেকে তৈরি করে নিতেন।

সুতরাং সমান্য কিছু ফি দেওয়ার মাধ্যমে আপনি যদি জানতে পারেন যে আপনার পরর্বতী পদক্ষপ কি নেওয়া উচিত তাহলে সমস্যা আছে কি।

অথবা আপনি নিজেকে একজন ক্যারিয়ার পরামর্শক হিসাবে তৈরি করে এই পেশায় আসতে পারেন। একজনা ক্যারিয়ার পরামর্শকে চোখ-কান খেলা রাখতে হয় এবং জানতে হয় কোথায় কি হচ্ছে।

আপনি আজ থেকে নিজেকে ক্যারিয়ার পরামর্শক হিসাবে প্রস্তুত করতে পারেন। একজন ক্যারিয়ার অনলাইন পরামর্শক আয় এবং অফ-লাইন দুই ভাবেই আয় করতে পারে।

ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার উপায়

৫. বিউটিশিয়ান

এই সময় এর একটি প্রতিষ্টিত ব্যবসা। বিউটিশিয়ান, বর্তমানে অফ-লাইনে কাজ করে পরামর্শ দিয়ে থাকে। একজন বিউটিশিয়ান চাইলে অনলাইন পরামর্শ আয় করতে পারে। যদিও বিউটি পরামর্শ দেওয়ার স্ক্রিন পরীক্ষা করাটা জরুরি।

তবে সব ক্ষেতে স্ক্রিন পরীক্ষা করে পরামর্শ দিতে হয় এমন টা নয়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে আপনি অনলাইন পরামর্শ আয় করতে পারবেন।

বিস্তারিত আরও পড়ুর