অনলাইন পোর্টফলিও তৈরি , খরচ এবং উপকার

অনলাইন পোর্টফলিও তৈরি

অনলাইন পোর্টফলিও তৈরি এখন সময়ের দাবী। দিন যত যাবে অনলাইন পোর্টফলিও এর চাহিদা বৃদ্ধি পাবে, এটাই স্বাভাবিক।

উদাহরন সরূপ রাসেল এক জন ডিজাইনার, বিগত ৩ বছর যাবত সে বিভিন্ন কোম্পানির ডিজাইন এর কাজ করছে। সে এখন একটি ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানিতে চাকরি করতে চায়। সেই ক্ষেত্রে রাসেল একটি সিভি তৈরি করল এবং যতটুকু সম্ভব সিভিতে নিজের সম্বন্ধে উল্লখ করল।

কিন্তু রাসেল কোন ভাবেই তার যে কাজ তার ডেমো বায়ারকে দেখাতে পারে না। এখন রাসেলের একটি পোর্টফলিও আছে এবং সে সবাইকে দেখাতে পারে সে কি কি কাজ করেছে। এতে করে রাসেল যে সব কাজ করেছে তার যেমন উল্লখ করা আছে সাথে কাজের নমুনার ছবিও আছে।

এখন আপনারাই বলুন, একটি পোর্টফলিও আপনার জন্য কতটা দরকারি।

একটি অনলাইন পোর্টফলিও তৈরি করতে যা যা লাগবে

  • ডোমেইন নাম ক্রয়
  • হোস্টিং
  • ডিজাইন

ডোমেইন নাম নির্বাচন এবং ক্রয়

ডোমেইন নাম নির্বাচন করার জন্য আমার ব্যাক্তিগত মতামত হল নিজের নামে ডোমেইন নাম ক্রয় করা। যদি কখনো নিজের নামে ডোমেইন না পান তবে, নামের সাথে কোন কিছু এড করে ক্রয় করার চেষ্টা করতে দেখতে পারেন।

সাধারনত বাংলাদেশের কোম্পানির ডোমেইন এবং হোস্টিং চার্জ তুলনামূলক ভাবে বেশি। আপনি বাইরের কোন দেশের কোম্পানির থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করলে কম মূল্যে পাবেন। কিন্তু বাইরের কোন কোম্পানির থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং ক্রয় করার জন্য ডলার লাগবে।

আপনার ক্রয় করার জন্য ডলার না থাকলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। এতটুকু সহযোগিতা আমরা করতেই পারি।

বাংলাদেশের একটি ডোমেইন এর জন্য প্রতি বছর আপনাকে পেমন্টে করতে হবে প্রায় ৮৫০ হতে ১০০০ টাকা।

বাইরের একটি দেশে হতে ডোমেইন ক্রয় করলে আপনার প্রতিবছর খরচ হবে ৪০০ হতে ৬০০ টাকা।

অনলাইন আয়ের বিস্তারিত আলোচনা

হোস্টিং ক্রয়

হোস্টিং খরচ বাংলাদেশে সব থেকে বেশি বলে আমার মনে হয়। যেমন আপনি ১ জিবি হোস্টিং বাংলাদেশের কোন কোম্পানির থেকে ক্রয় করলে মিনিমাম খরচ হবে ১০০০ হতে ১২০০ টাকা।

কিন্তু আপনি অন্য কোন দেশের থেকে ক্রয় করলে খরচে হবে ৬০০ হতে ১০০০ টাকা ২ জিবি হোস্টিং।

হোস্টিং সিকিউরিটি একটি বিশাল বিষয় বাংলাদেশের কোম্পানির কাছে তা নাও পেতে পারেন। অন্য দিকে বিশ্বের অনেক কোম্পানি আছে যারা খুব ভালো হোস্টিং সিকিউরিটি দিয়ে থাকে।

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং কাজ

অনলাইন পোর্টফলিও তৈরি এবং ডিজাইন

আপনি অনলাইন থেকে কাজ পাবেন কি না এটা সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করবে আপনার পোর্টফলিও ডিজাইনের উপর। আপনার পোর্টফলিও এর ডিজাইন ভালো করতে না পারলে কোন লাভ হবে না।

উপরের দেওয়া ইমেজটা একজন ব্যাক্তির পোর্টফলিও। ইমেজ এ দেওয়া পোর্টফলিও সম্পূর্ণ ভাবে দেখতে Click here

অনেক ফ্রিল্যান্সার শুধু ভালো পোর্টফলিও থাকার কারনে হাজার হাজার ডলারের কাজ পাচ্ছেন। আপনি যদি একজন নতুন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন তাহলে পোর্টফলিও থাকাটা জরুরি।

প্রথম দিকে নতুন ফ্রিল্যান্সারদের কাজ পেতে সমস্যা হয় কিন্তু আপনার যদি একটি পোর্টফলিও থাকে তবে খুব তারাতারি কাজ পাওয়ার সম্ভবনা বেড়ে যায়।

এই পোর্টফলিও টি দেখতে পারেন brandonhyman

ফেসবুক মনিটাইজেশন করে আয় করার উপায়

একটি পোর্টফলিও এর মধ্যে যা থাকা জরুরি বা প্রয়োজনীয়

  • নিজের সম্পর্কে একটি ভালো বর্ননা থাকাটা জরুরি আপনার পোর্টফলিও এর মধ্যে।
  • আপনার পড়ালেখা, অভিজ্ঞতা, প্রজেক্ট প্রফাইল, ইত্যাদি।
  • কেস স্টাডি
  • নিজের ডিজাইন করা একটি সম্পূর্ণ প্রজেক্ট

নতুনদের ক্ষেত্রে কাজ করা হয়েছে এমন প্রেজেক্ট নিজের পোর্টফলিও এর সাথে যুক্ত করাটা কঠিন। কারন নতুন ফ্রিল্যান্সারের কাছে আগে কাজ করেছে এমন কোন ডকুমেন্ট থাকে না।

সে ক্ষেত্রে একজন নতুন ফ্রিল্যান্সার যা করতে পারে তাহল একটি প্রজেক্ট ডিজাইন করে পোর্টফলিও এর সাথে যুক্ত করা।

একটা উদাহরন দিয়ে বিষয়টা বোঝানো যাকঃ

রাতুল একজন ডাটা এন্ট্রি ওয়ার্কার, সে জানে কি ভাবে ডাটা এন্ট্রি কাজ করতে হয়। কিন্তু সে যেহেতু নতুন সুতরাং ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে রাতুলের সমস্যা হবে।

এই অবস্থায় রাতুল যা করতে পারে তাহল নিজের পোর্টফলিও ওয়েবসাইটে কিছু ভিডিও শেয়ার করতে পারে। যে ভিডিও মাধ্যমে রাতুল দেখাবে যে কি ভাবে ডাটা এন্ট্রির কাজ করতে হয়।

ফেসবুক বিজ্ঞাপন কপিরাইট করে আয় করুন

পোর্টফলিও তৈরি করতে কত খরচ হবে

যদি বাংলাদেশের কোম্পানি দিয়ে ডোমেইন হোস্টিং ক্রয় করে পোর্টফলিও তৈরি করতে চান সেই ক্ষেত্রে খরচ হবে ৫০০০ হতে ৬০০০ টাকা।

আপনি নিজেই ডিজাইন করতে পারলে খরচ হবে ২৫০০ হতে ৩০০০ টাকা। তবে পোর্টফলিও এর ভাষা ইংরেজি হতে হবে। অন্য কোন ভাষায় পোর্টফলিও তৈরি করে কোনে উপকার হবে না।

পোর্টফলিও তৈরি করার উপায়

অনলাইন মার্কেট প্লেসে কাজ পেতে পোর্টফলিও কি ভাবে সহযোগিতা করে

আপনি একজন নতুন ফ্রিল্যান্সার হয়ে যখন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে কাজ বিড করবেন তখন আপনাকে বেসিক কিছু বিষয় জানার সাথে সাথে প্রেফাই তৈরি করাটা জরুরি।

আপনি যে অন্যের থেকে ভিন্ন এবং ভালো কাজ করবেন এর জন্য প্রমান দরকার। পোর্টফলিও আপনার কাজের প্রমান সরূপ কাজ করবে।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটে একটার পর একটা কাজ করবেন এবং সেই কাজের ফলাফল পোর্টফলিও ওয়েবসাইটে যুক্ত করবেন। এই ভাবে আপনার কাজের অভিজ্ঞতা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে আপনার চাহিদা এবং কাজের মানও বৃদ্ধি পাবে।

একটা সময় আপনি এতো কাজ করবেন যে পরর্বতীতে তা করার জন্য টিম তৈরি করতে হবে।

অনলাইন আয়ের সহজ উপায়

পোর্টফলিও তৈরি এবং খরচ বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জানার জন্য নিচের ভিডিও টি দেখুন

বিস্তারিত আরও পড়ুর