ব্যবসায়িক স্পেস নির্ধারণ এবং নির্বাচনে যে ৮ টি বিষয় অবশ্যই লক্ষ্য রাখবেন

Determining business space

যেকোন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের জন্য অফিস স্পেস যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আপনার আমার যেমন বলার অপেক্ষা রাখে না, তেমনি ভালো লোকেশনে অফিস স্পেস খুজে পাওয়া আসলেই খুব কষ্টসাধ্য এবং দুষ্কর।

আপনি অবশ্যই চাইবেন ভালো লোকেশনে আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা অফিস স্পেস করতে যেখানে আপনার পর্যাপ্ত সকল সুযোগ সুবিধা এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারেন।

আপনার কাছে এই অফিস স্পেস লোকেশন সংক্রান্ত অনেক অপশন পাবেন যার মধ্যে আপনাকে বেস্ট অপশনটি বেছে নিতে হবে।

এখন স্বভাবতই প্রশ্ন আসে,

লোকেশন নির্বাচনের ক্ষেত্রে কোন কোন বিষয় আপনার লক্ষ্য রাখা উচিত?

এখন কমার্শিয়াল স্পেস নির্বাচনের ক্ষেত্রে সেই অফিসের ধরণ কেমন হবে? স্থায়ী নাকি অস্থায়ী চুক্তিভিত্তিক।

আপনি কি পারমানেন্ট লোকেশন খুজছেন নাকি অস্থায়ী ভিত্তিতে খুজছেন সেই বিষয়ের আপানাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

তাই চলুন জেনে নেওয়া যাক, ব্যবসার অফিস বা কমার্শিয়াল নির্বাচন করার সময় কোন বিষয় গুলো বিবেচনা করা উচিত।

বাংলাদেশে ব্যবসায়িক স্পেস নির্ধারণ এবং নির্বাচন

বাংলাদেশে ব্যবসায়িক স্পেস নির্বাচন কিছু কিছু ক্ষেত্রে দুষ্কর আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে সহজ। অনলাইনে বিক্রয় ডট কম – এর মত এমন কিছু ক্লাসিফাইড ওয়েবসাইট আছে যেখান থেকে আপনি আপনার ব্যবসায়িক স্পেস নির্বাচন করতে পারেন আপনার কাংক্ষিত লোকেশন। তাছাড়া এমন আরো অনেক ফ্যাকটর আছে যার উপর ভিত্তি করে আপনি ব্যবসায়িক স্পেস নির্ধারন এবং নির্বাচন করতে হবে।

১. ব্যাপক জনসমাগম

জনসংখ্যা বিবেচনা করার সময়, আপনার দুটি গুরুত্বপূর্ণ দিক সম্পর্কে চিন্তা করা উচিত। প্রথমে, আপনার গ্রাহক কারা? এবং তারা আপনার অবস্থানের কতটা কাছাকাছি সে সম্পর্কে আপনার চিন্তা করা উচিত। এটি কিছু পরিষেবা প্রদানকারী এবং খুচরা বিক্রেতাদের জন্য সমালোচনামূলক কিন্তু অন্যান্য ব্যবসার জন্য নয়।

ধরুন, আপনি স্টেশনারির ব্যবসা করবেন সে ক্ষেত্রে আপনার সর্বপ্রথম বিবেচ্য বিষয় কোনটি? অবশ্যই এমন কোন জায়গা যেখানে স্টেশনারি বেচাকেনা বেশি হয়, এর অর্থ হল আপনার উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য থাকবে যেখানে অফিস আদালত এবং স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় বেশি থাকবে সেখানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করার। সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থী এবং অফিসে চাকরিরত কর্মকর্তা এবং কর্মচারি আপনার টার্গেটেড কাস্টমার।

জনসংখ্যাতাত্ত্বিক বিবেচনায় আপনার ব্যবসার অবস্থান নির্বাচন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রভাবক হিসেবে কাজ করতে পারে। আপনার ক্রেতারা কোথায় অবস্থান করে বা করছে তা বিবেচনা করুন। আপনার স্থানীয় এলাকা সম্পর্কে বিশেষ করে আপনার পছন্দসই অবস্থান যেখানে আছে তার আশে পাশে জনসমাগম দিকগুলি নিয়ে গবেষণা এবং পর্যালোচনা করুন। আপনার এলাকায় আপনার পণ্য বা সেবার চাহিদা কেমন হতে পারে? সে সম্পর্কে আরও তথ্য সংগ্রহ করুন।

২. পথ চলাচল ব্যবস্থা

ফুট ট্রাফিক এবং চলাচলের উপর নির্ভর করেও আপনার ব্যবসার লোকেশন এবং স্পেস নির্ধারণ করতে হবে। কেউ চায় না এমন একটি কোণায় আটকে থাকতে যেখানে গ্রাহকরা তার পাশ কাটিয়ে চলে যেতে সমস্যা হয়। আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আশে পাশে মানুষ পর্যাপ্ত স্পেস থাকতে হবে।

স্থান অনুসন্ধান করার সময় এমন একটি স্থান নির্বাচন করুন যেখানে অনেক বেশি ভিড় রয়েছে। সম্ভাব্য অবস্থানের নির্ধারিত এলাকায় মানুষের পায়ে চলাচলের মাত্রা থেকে আপনার ব্যবসা কীভাবে উপকৃত হতে পারে তা যাচাই করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করতে হবে।

দিনের নির্দিষ্ট সময়ে এবং সপ্তাহের বিভিন্ন সময়ে একটি নির্দিষ্ট স্থানের বাইরে ট্রাফিক পর্যবেক্ষণ করে একটি আদর্শ অবস্থান নির্বাচন করুন। সেই এলাকার ট্রাফিক আপনার চাহিদা পূরণ করে কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য এটি একটি দুর্দান্ত উপায়।

৩. পর্যাপ্ত পার্কিং সুবিধা

যারা বড় ব্যবসার জন্য চিন্তা ভাবনা করছেন তাদের জন্য ব্যবসায়িক জায়গাটি হতে হবে অনেক উন্নত মানের। তাদের এমন একটি অবস্থান নির্বাচন করতে হবে যেখানে সচরাচর মানুষের যাতায়াতের সুবিধা রয়েছে এবং গাড়ি পার্কিং এর মত সুবিধা রয়েছে।

কর্মচারী এবং গ্রাহকদের জন্য পর্যাপ্ত পার্কিং আছে তা নিশ্চিত করতে হবে। এক্ষেত্রে রাস্তার পাশে এমন কোন জায়গা পাওয়া গেলে সেই জায়গাটিকে ব্যবসার জন্য উত্তম হিসেবে বিবেচনা করা যায়।

এছাড়া এমন একটি জায়গা নির্ধারণ করতে পারেন যে জায়গাটি সহজেই খুঁজে পাওয়া সম্ভব অর্থাৎ আপনার নির্বাচিত জায়গাটি যেন ম্যাপ লোকেটেড হয় সেদিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখুন। এতে আপনার আগত গেস্ট এবং ক্লায়েন্টের জন্য সহজ হবে।

আপনার ব্যবসা কি ঘন ঘন ডেলিভারির উপর নির্ভর করে?

যদি তাই হয়, স্থানীয় পরিবহন গুলোর যাতায়াতের ব্যবস্থা আছে কিনা সেই বিষয়ে গুরুত্ব দিন, বিশেষ করে প্রধান রাস্তা থেকে যেন আপনার বাছাইকৃত জায়গাটি যেন বেশি ভিতরে না হয়। এ ক্ষেত্রে বাণিজ্যিক আঞ্চলিক নির্বাচন করা উত্তম। একইভাবে, যদি আপনি উচ্চ গ্রাহকের পদচারণের উপর নির্ভর করেন, তাহলে গাড়ী, বাস এবং এমনকি ট্রেনে আপনার অবস্থান অ্যাক্সেসযোগ্য তা নিশ্চিত করা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিবেচ্য বিষয় হবে।

এমনকি আপনার কর্মচারীদেরও ভুলে যাবেন না, কারণ আপনার ব্যবসায় সঠিক লোক নিয়োগের ক্ষেত্রে একটি ভাল অবস্থান প্রায়শই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, কারণ ব্যবসার ক্ষেত্রে কর্মচারীদের অসুবিধা মূল্যায়ন করার ও প্রয়োজন হয়। তদুপরি, আপনার নিশ্চিত করা উচিত যে পার্কিংয়ের জায়গাটি পর্যাপ্তভাবে আলোকিত এবং ভাল রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়েছে কিনা।

৪. অন্যান্য সকল সুযোগ সুবিধা

একটা ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় সকল সুযোগ সুবিধার
আপনার প্রতিযোগীরা কোথায় আছেন তা বিবেচনা করুন। আপনার প্রতিযোগীরা কোথায় তা জেনে আপনি এমন একটি ব্যবসার অবস্থান খুঁজে পেতে পারেন যা আপনাকে আপনার নিজস্ব ভিত্তি স্থাপন করতে সাহায্য করবে। এটি আপনাকে অন্যান্য কোম্পানীর তুলনায় আপনার পণ্য বা সেবার চাহিদা আরও ভালভাবে নির্ধারণ করতে সহায়তা করবে।

আপনি যদি বিনোদন এলাকা বা রেস্তোরাঁর কাছাকাছি থাকেন তাহলে আপনি আপনার কাছাকাছি ব্যবসায়ী দের বাড়তি ধরতে পারেন কিন্তু যদি আপনি সিজে এভিয়েশন ফুয়েল পাম্প বিক্রি করেন এবং আপনার কাছাকাছি একজন প্রতিযোগী ব্যবসায়ী থাকে যে একই জিনিস বিক্রি করে, তবে অন্যত্র জায়গা পরিবর্তনের কথা বিবেচনা করুন।

অনেক সময় যখন ভোক্তারা খুব সুনির্দিষ্ট পণ্য খুঁজেন, তারা বুঝতে পারেন যে তাদের পছন্দ সীমিত হতে পারে, তাই তারা সম্ভবত শুধুমাত্র একটি অবস্থান পরিদর্শন করবে। কিন্তু অন্যান্য প্রতিযোগিতামূলক ব্যবসার সাথে আপনার সান্নিধ্য আপনার সাফল্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে।

আপনার এলাকায় কোন কোন প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছে এবং তারা কি বিক্রি করছে তা নির্ধারণ করা প্রয়োজন এবং অনেক ক্ষেত্রে তাদের অফার আপনাকে আপনার ব্যবসার জন্য সঠিক অবস্থান চয়ন করতে সহায়তা করতে পারে। যদি খুব বেশি প্রতিযোগিতা থাকে তবে এটি আপনার দিগন্তকে একটি নতুন স্থানে প্রসারিত করার জন্য একটি সতর্কতা চিহ্ন হতে পারে।

এমন একটি এলাকা বেছে নেওয়া অনেক ক্ষেত্রে সুবিধাজনক যেখানে ইতিমধ্যেই একটি পাকা বাজার রয়েছে এতে গ্রাহকদের খুব দ্রুত পণ্য বাছাই করতে সুবিধা হয় এবং এটি একটি নতুন এলাকায় উপস্থিতি স্থাপনের আদর্শ উপায় হতে পারে অপেক্ষাকৃত স্বল্প সময়ের মধ্যে।

৫. নিরাপত্তা

এটা বলা ঠিক যে ব্যবসায়, আমরা সবাই তথ্য, অন্তর্দৃষ্টি এবং সম্ভাবনার উপর ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নিই যা একটু ভাগ্যের সাথে মিশে থাকে। কিন্তু আপনি যেসব এলাকায় বিবেচনা করছেন সেখানে অপরাধের সম্ভাবনা সম্পর্কে জানা এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

কিছু কিছু এলাকা রয়েছে যেখানে চুরি-ডাকাতির সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে, সে ধরনের এলাকা এড়িয়ে চলুন, এই ধরনের এলাকাগুলোতে মানুষের চলাচল কম থাকে, ফলে আপনার ব্যবসায় বিরাট ধরনের ক্ষতি হতে পারে। এসব দিক বিবেচনা করে আপনাকে আরও ভালভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে এবং পর্যাপ্ত সতর্কতা অবলম্বন করে চলতে হবে।

৬. পর্যাপ্ত জায়গা এবং স্পেস

আপনার ব্যবসার ধরণের উপর ভিত্তি করে আপনার জায়গা এবং স্পেস নির্ধারণ করতে হবে। শুরুর দিকে আপনি কতজন লোকবল নিয়ে কাজ করবেন? এবং আস্তে আস্তে কিভাবে এক্সপান্ড করবেন? তাও কিন্তু বিবেচ্য বিষয়। একটা সময় আপনার যখন সম্প্রসারণের সময় হবে তখন তা যাতে আপনি সহজেই সম্প্রসারণ সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

৭.লে-আউট

অফিস স্থানান্তর একটি ব্যয়বহুল এবং কষ্টসাপেক্ষ। আপনি যদি ভাড়া থাকেন, ইনস্টলেশনের জন্য প্রতি বর্গ মিটারে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পরিবর্তনের জন্য বরাদ্দ থাকে তবে এ ব্যাপারটা নিশ্চিত হতে হবে যে এটি আপনার পরিবর্তনগুলিকে কভার করবে বা আপনি সেই অনুযায়ী বাজেট করেছেন এবং প্রয়োজনীয় পরিবর্তনগুলি করতে পারেন৷

কিছু জায়গা অন্যদের তুলনায় আপনার যা প্রয়োজন তার কাছাকাছি হবে। প্রধান কাঠামোগত সংস্কারগুলি সময়সাপেক্ষ এবং ব্যয়বহুল, এবং আপনার ব্যবসায় দীর্ঘমেয়াদী মূল্য যোগ করে না। বরং একটি ফাঁকা স্লট সন্ধান করুন যা তুলনামূলকভাবে সস্তা ড্রাইওয়াল দিয়ে কাস্টমাইজ করা যেতে পারে, বা এমন একটি জায়গা যা পুনরায় কনফিগার করা যেতে পারে।”

৮. ব্যবসার অবস্থান আপনার বাজেটের মধ্যে আছে তা নিশ্চিত করুন

অবশ্যই, আপনার প্রধান অগ্রাধিকারগুলির মধ্যে একটি হল এমন একটি অবস্থান খুঁজে বের করা যা আপনার কোম্পানির বাজেটের মধ্যে খাপ খায়। প্রায় প্রতিটি অবস্থানের বিভিন্ন লুকানো খরচ রয়েছে, যার জন্য আপনাকে হিসাব করতে হবে: কর, সংস্কার, ইউটিলিটি আপগ্রেড, ন্যূনতম মজুরির প্রয়োজনীয়তা এবং অর্থনৈতিক প্রণোদনা।

এমনকি মোবাইল ব্যবসাগুলিকে একটি নতুন ব্যবসায়িক অবস্থান বেছে নেওয়ার সময় পারমিট এবং যানবাহনের লাইসেন্সের খরচ ও বিবেচনা করতে হবে।

উপরের বিষয়গুলো আপনাকে আপনার ব্যবসায় এর জন্য পছন্দসই একটি অবস্থান বাছাই করতে সাহায্য করবে। কিন্তু মনে রাখবেন কোন কিছু করার আগে, এলাকার অন্যান্য ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলতে ভুলবেন না। আপনি কোন জায়গাটি বাছাই করছেন, সেই স্থানটি ব্যবসার জন্য ভালো কি মন্দ তা স্থানীয় লোকেরাই ভালো করে বলতে পারবে।

এমনকি আপনার আশেপাশের বাকি ব্যবসায়ীরাও যেনো আপনার অবস্থান চয়নের সিদ্ধান্তে খুশি হন। যদিও আপনি কখনই ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারবেন না যে একটি নতুন অবস্থান সফল হবে কিনা, কিন্তু আপনি আপনার ক্রমবর্ধমান ব্যবসার জন্য কোন অবস্থান সবচেয়ে উপযুক্ত হবে তা নিশ্চিত করার জন্য যতটা সম্ভব আগে থেকেই গবেষণা ও পর্যবেক্ষণ শুরু করতে করতে পারেন।

বিস্তারিত আরও পড়ুর