অনলাইন কোর্স তৈরি এবং বিক্রয় করার উপায়

অনলাইন কোর্স তৈরি

অনলাইন কোর্স তৈরি করে আয় করতে চাইলে আপনাকে প্রতিটি কাজ ধাপে ধাপে করতে হবে। কোন কাজটি আগে করবেন পূর্বেই নিধারন করতে হবে।

আপনার কোর্স এর কৌশলগত দিক গুলো ভালো ভাবে নিয়ন্ত্রন করতে না পারলে কোর্স বিক্রয় করা কঠিন হয়ে যাবে।

কোর্স কী ভাবে তৈরি করবেন তার একটি লিষ্ট

  • যে বিষয় নিয়ে কোর্স তৈরি করতে চান তা নির্বাচন করুন।
  • কোর্স এর মধ্যে যে সব বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন তা প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত লিষ্ট তৈরি করুন।
  • কোর্স তৈরি করার জন্য প্রয়োজনীয় সফটয়্যার
  • ভালো অডিও রেকর্ডার

কোর্স এর বিষয় এবং মূল্য নির্ধারন

এই বিষয়টি খুবেই গুরুত্বপূর্ণ কারন কোর্স এর বিষয় সঠিক ভাবে নির্বাচন করতে না পারলে ভালো কোর্স তৈরি করা সম্ভব নয়। ধরুন আপনি একই সাথে অনেক গুলো বিষয় জানেন কিন্ত আপনাকে সেই বিষয়টাই নির্বাচন করতে হবে যা আপনি ভালো বুঝাতে পারবেন।

কোর্স এর বিষয় নির্বাচন এর আগে যে সব বিষয় খেয়াল রাখতে হবে।

  • আপনি কোন ধরনের গ্রহকের কাছে আপনার কোর্সটি বিক্রয় করতে চান এটা প্রথমে নির্বাচন করতে হবে।
  • এবার গ্রহকের চাহিদা অনুযায়ী কোর্স তৈরি করতে হবে।
  • কোর্স এর মূল্য নির্ধারন করা বিষয় সর্তক থাকতে হবে।
  • মানুষ যেন সহজে বুঝতে পারে, সেই ভাবে কোর্সটি সাজাতে হবে।
  • সময় উপযোগি কোর্স তৈরি করতে হবে।

একটি উদাহরন দেওয়ার মধ্যে দিয়ে বিষয়টা আলোচনা করা যাকঃ

যেমন আমি একজন ডিজিটাল মার্কেটার এবং ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট কাস্টোমাইজার। সুতরাং আমি কোন কোর্স তৈরি করতে চাইলে আমার প্রথম বিষয় হবে ডিজিটাল মার্কেটিং অথবা ওয়ার্ডপ্রেস।

আমার গ্রাহক হবে দুই ধরনের এক ২৫ হতে ৩০ বছর বয়সের অথবা ২০ হতে ২৫ বছর বয়সের গ্রাহক।

এই গ্রাহকের কথা মাথায় রেখে আমাকে কোর্সটি সাজাতে হবে। যাতে করে ২০ হতে ৩০ বছর পর্যন্ত সমস্ত মানুষ আমার কোর্সটি বুঝতে পারে।

কোর্স তৈরি করা শেষ হয়ে গেলে কোর্স এর মূল্য নির্ধারন করতে হবে। ২০ হতে ৩০ বছরের মধ্যে দুই ধরনের লোক থাকে। এক প্রকার লোক টাকা আয় করে অন্য প্রকার লোক পরিবারের উপর নির্ভর করে।

সুতরাং আপনাকে কোর্স মূল্য এমন ভাবে নির্ধারন করতে হবে যেন দুই পক্ষ ক্রয় করতে পারে।

ট্রান্সলেট কাজ করার বিভিন্ন উপায়

কোর্স তৈরি করার উপর Survey করুন

কোন কোর্স তৈরি করার আগে বাজার যাচাই করাটা জরুরি। আপনি কোর্স তৈরি করার পর বা আগে ফেসবুক, ইউটিউবে, গুগলে কোর্স বিষয়ে সার্ভে করুন। একটা উদাহরন দেওয়া যাক ধরুন আপনি ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে একটি কোর্স তৈরি করতে চাচ্ছেন। এবং কোর্স টি অনলাইনে বিক্রয় করার জন্য এড দিতে চাচ্ছেন। তার আগে সার্ভে করুন যে কোন ধরনের কোর্স মানুষ ক্রয় করতে চাচ্ছে।

যেমন সার্ভে এমন হতে পারে।

আপনি বর্তমানে অনলাইন থেকে কোন ধরনের কোর্স ক্রয় করার কথা ভাবছেন।

ক. ফেসবুক মার্কেটিং

খ. ইউটিউব মার্কেটিং

গ. গুগল মার্কেটিং

ঘ. এসইও

উপরের সার্ভে রেজাল্টের উপর নির্ভর করে কোর্স তৈরি করতে পারেন। এতে করে আপনার কোর্স তৈরি বিষয় নির্বাচন সহজ হবে এবং বিক্রয় ভালো হবে।

অনলাইন মাইক্রো ওয়ার্ক

অনলাইন কোর্স তৈরি এবং বিস্তারিত আলোচনা

আপনি আপনার কোর্স তৈরি করার সময় একটি বিষয় অবশ্যই খেয়াল রাখবেন, তাহল আপনার কোর্সটি মানুষ কেন ক্রয় করবে।

এলোমেলো ভাবে সাজানো কোর্স কখনো ভালো বিক্রয় হয় না। যদি মানুষ এলোমেলো ভাবে শিখতে চায় তবে ইউটিউব থেকে শিখবে।

কিন্তু মানুষ ইউটিউব থেকে না শিখে, টাকা দিয়ে কোর্স ক্রয় করে শিখে। এর একটাই কারন হল, মানুষ গোছানো বিষয় পছন্দ করে।

সুতরা, আপনি যখন একটি কোর্স তৈরি করবেন তখন আপনার কোর্স এর গঠনের দিকে খেয়াল রাখবেন।

আপনাকে আরও নির্ধারন করতে হবে কোন বিষয়টি প্রথমে আলোচনা করবেন। এবং কোন বিষয়টি দ্বিতীয় ধাপে আলোচনা করবেন। তবে খেয়াল রাখবেন যেন কাজের কথাই বেশি হয়। এমন আমি অনেক কোর্স করেছি যেখানে কাজের থেকে, বাইরের কথাই বেশি।

আপনার ভিডিও কোর্স প্রতিটি যেন ৫মিনিট এর বেশি না হয়। সম্ভব হলে এর থেকে কম সময়ের ভিডিও রেকর্ড করতে হবে। মনে রাখবে এই ধরনের শিক্ষামূল কোর্স এ মানুষ বেশি সময় মনোযোগ ধরে রাখতে পারে না। আপনার আসল উদ্দশ্য মানুষকে শেখানো তাদের সময় নষ্ট করা নয়।

কোর্স তৈরি করার আগে আপনাকে মিনিমাম ৫ হতে ৭ টা পেইড কোর্স করতে হবে। এবং আপনাকে ভালো ভাবে প্রতি বিষয় খেয়াল করে আপনার কোর্স সাজাতে হবে। কোর্স করে কোর্স তৈরি করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।

ওয়েবসাইট রিভিউ করে অনলাইন থেকে আয় করুন

অনলাইন কোর্স তৈরি করার প্রয়োজনীয় সফটয়্যার

অনলাইন কোর্স তৈরি করার জন্য যা যা লাগবে।

  • Microsoft PowerPoint মাইক্রসফটওয়্যার আফিস ইন্সটল দেওয়ার সাথে সাথে পাওয়ার পয়েন্ট সেটআপ হয়ে যাবে। তবে আপনাকে জানতে হবে কি ভাবে পাওয়ার পয়েন্ট ব্যবহার করতে হয়। পাওয়ার পয়েন্ট সম্পর্কে আপনাকে এক্সপার্ট হতে হবে, এমনটা নয়। তবে পাওয়ার পয়েন্ট এর বেসিক বিষয় গুলো জানা থাকাটা জরুরি।
  • Screen Video Recorder আপনি পেইড এবং ফ্রি স্ক্রিন ভিডিও রেকর্ডার পাবেন অনলাইনে। তবে একটি ভালো স্ক্রিন ভিডিও রেকর্ডার হলে ভালো হয়। আমি নিচে কিছু স্ক্রিন ভিডিও রেকর্ডার শেয়ার করছি।

অনলাইন কোর্স তৈরির Screen Video Recorder

আমি কিছু Screen ভিডিও রেকর্ডার শেয়ার করছি যা থেকে আপনি যে কোন একটি বাছাই করে নিতে পারেন। একটি ভালো Screen ভিডিও রেকর্ডার কোর্স তৈরি করার জন্য জরুরি।

১. Bandicam

আমার পছন্দের একটি স্ক্রিন ভিডিও রেকর্ডার Bandicam. আপনি এই স্ক্রিন ভিডিও রেকর্ডার মাধ্যমে খুব সহজে রেকর্ড করা সহ, অনেক ফাংশন আছে। যেমন আপনি Bandicam এর মাধ্যমে খুব সহজে কোন কিছু মার্ক করতে পারবেন রেকর্ড করার সময়।

Bandicam এর পেইড ভার্সন এর মূল্য $39.95 (Lifetime)

২. ফ্রি স্ক্রিন ভিডিও রেকর্ডার

এই সফ্টওয়্যার আপনি ফ্রি ব্যবহার করতে পারবেন। সফ্টওয়্যারে মাধ্যমে খুব সহজে স্কাইপ কথোপকথন রেকর্ড করতে পারবেন। এই সফ্টওয়্যার এর মাধ্যমে আপনি পৃথক পৃথক ভাবে ভিডিও ক্যাপচার করতে পারবেন একই অ্যাপ্লিকেশন এর মাধ্যমে ।

এই সফ্টওয়্যার এর মাধ্যমে রেকর্ড করা ভিডিও আপনি বিভিন্ন ফরম্যাট এ সেভ করতে পারবেন।

Download Free Screen Video Recorder

উপরে উল্লেখ করা যে কোন একটি সফটওয়্যার ব্যবহার করে আপনি আপনার ভিডিও তৈরি কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন।

ব্লগিং করে আয় করার বিস্তারিত জানুন

অডিও রেকর্ডার

অনলাইন কোর্স তৈরি করার কাজে অডিও রেকর্ডার একটি গুরুত্বপূর্ণ ডিভাইস। কোর্স এর অডিও ভালো হওয়াটা জরুরি। অডিও ভালো না হলে মানুষ বুঝতে পারবে না।

আমার ব্যাক্তিগত মতামত জানতে চাইলে আমি বলব, কোন ব্রান্ডের অডিও রেকর্ডার ক্রয় করতে হবে।

আপনি যদি ফ্রি অডিও রেকর্ডার ব্যবহার করতে চান তবে মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। মোবাইল ফোনে অডিও রেকর্ডার যদি থাকে তাহলে অ্যাপ ডাউনলোড দিয়ে কাজ করার চেষ্ট করতে পারেন।

যদি অডিও রেকর্ডার ক্রয় করতে চান তবে প্রফেশনাল অডিও রেকর্ডার ক্রয় করবেন এ ক্ষেত্রে আপনার খরচ পড়বে ১০০০ হতে ২০০০ টাকা।

ফ্রি প্রফেশনাল ব্লগিং কোর্স

অনলাইন কোর্স বিক্রয় করার কৌশল

  • ফেসবুক মার্কেটিংঃ লোকাল মার্কেটের জন্য কোর্স তৈরি করলে ফেসবুক ভালো মাধ্যম কোর্স বিক্রয় এর জন্য। আপনার কোর্স যদি ইন্টারন্যাশনাল হয় তবে ইউটিউব ভালো মাধ্যম হবে মার্কেটিং করার জন্য। যদি এটা আমার ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতা আপনি অন্য ভাবে চেষ্টা করতে পারেন।
  • মার্কেটিং বাজেটঃ অনলাইন কোর্স বিক্রয় করার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং বাজেট এবং মার্কেটিং কৌশল খুবেই গুরুত্বপূর্ণ। কারন আপনি যত টাকাই বাজেট এ রাখেন না কেন তা সটিক ভাবে ব্যয় করতে না পারলে সফলতা পাবেন না।
  • আপনি যদি মনে করেন যে আপনার কোর্স ফেসবুকে পোষ্ট করে বুষ্ট করলেই হবে, তা কিন্তু নয়। কোন ধরনের এড আপনার কোর্সের জন্য ভালো হবে তা বের করে তার উপর ইনভেস্ট করতে হবে।
  • আপনি প্রয়োজনে একজন ভালো ডিজিটাল মার্কেটারের সাথে কথা বলে মার্কেটিং করতে পারেন।
  • ব্লগ রেফারঃ আপনার কোর্স এর বিষয়বস্তু অনুযায়ি দুইটি বা চারটি ব্লগ খুজে বের করতে হবে। এবার সেই ব্লগারকে ইমেল করে তা সাথে যোগাযোগ করুন। এবং আপনি তার ব্লগে এড দিতে চান তা সেই ব্লগারকে বলুন। পরিশেষে সব কিছু ঠিক থাকলে এড দিন এবং বিক্রি শুরু করুন।
  • ইউটিউব রেফারঃ আপনার কোর্স এর বিষয় অনুযায়ি ইউটুবারের সাথে যোগাযোগ করে এড দিতে পারেন।

আমি আপনাকে একটি ডিজিটাল এজেন্সি রেফার করছিঃ Best Digital Marketing Agency

বর্তমান সময়ে অনলাইনে কোর্স বিক্রয় করে আয় করাটা স্বাভাবিক। তবে অবশ্যই আপনাকে সবকিছু সঠিক ভাবে সততার সাথে করতে হবে।

কারন কেউ আপনাকে জানে না তারপরেও আপনার কোর্স ক্রয় করবে। এর একটাই কারন আর তাহল আপনার কথার উপর অন্যের বিশ্বাস।

সোস্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হয়ে অনলাইন থেকে আয় করুন

আপনি একবারে নতুন কোর্স মেকার হয়ে থাকলে, Udemy থেকে কোর্স তৈরি করার উপর কোর্স করতে পারেন। এর ফলে কি ভাবে কোর্স তৈরি করতে হয় তার উপর সম্পূর্ণ ধারনা পেয়ে যাবেন।

বিস্তারিত আরও পড়ুর